কানাইঘাটে চারুকুড়ি বিলে বিষ প্রয়োগ করে পোনা নিধন

3

কানাইঘাট প্রতিনিধি
কানাইঘাটে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে চারুকুড়ি বিলে কীটনাশক জাতীয় বিষ মিশিয়ে পোনা নিধনে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। গত রোববার সন্ধ্যায় বিলের পাহারাদার বীরদল ছোটফৌদ গ্রামের মৃত সফাত আলীর পুত্র মঈন উদ্দিন বাদি হয়ে ৬ জনের নামোল্লেখ করে অভিযোগ দায়ের করেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায় উপজেলার বাণীগ্রাম ইউপির বড়দেশ নয়াগ্রামের মৃত হখাই মিয়ার পুত্র দুবাই প্রবাসী আব্দুল হাই গত কয়েক বছর পূর্বে কানাইঘাট সদর ইউপির হাওড় অঞ্চলে প্রায় ৩’শ একক ভূমির উপর চারুকুড়ি প্রকল্প নামে এএইচ ফিসারিজ ফার্ম করেছেন। এ ফিসারিতে গত ১৪ জানুয়ারী রাতের আঁধারে প্রতিপক্ষের লোকজন কীটনাশক জাতীয় বিষ ছেড়ে দেন। এতে ফিসারির পোনা মাছ মরে গিয়ে প্রায় ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
এ ব্যাপার বাদি মঈন উদ্দিন জানান, চারুকুড়ি মৎস্য প্রকল্পটি একটি বৃহৎ প্রকল্প। এখানে প্রায় অর্ধশত শ্রমিক কাজ করে। ফিসারির মালিক প্রবাসে যাওয়ার সময় মৎস্য প্রকল্পটির দেখা শুনার সকল দায়িত্ব তাকে দিয়ে যান। এতে প্রতিপক্ষের লোকজন মালিকের কাছে তার সুনাম নষ্ট করার জন্য নানা চেষ্টা চালাচ্ছে। এক পর্যায়ে গত ১৪ জানুয়ারী সদর ইউপির ভাটিদিহি গ্রামের মৃত মোবারক আলীর পুত্র অলিউর রহমান, বাজি লাল দাসের পুত্র কুঞ্জলাল দাস, বীরেন্দ্র দাসের পুত্র বলাই দাস, ছোটদেশ গ্রামের সরকার দাসের পুত্র কানু দাসের ষড়যন্ত্রে এখানকার শ্রমিক মৃত রহমত উল্লার পুত্র সেবুল আহমদ ও আবুল হোসেন মিলে মৎস্য খামারে বিষ প্রয়োগ করেছেন। যার কারণে তাদেরকে অভিযোগে আসামি করা হয়েছে।
এ ব্যাপারে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আবু কাওসার জানিয়েছেন তিনি সরজমিনে গিয়ে মাছের পোনা ও পানি জব্দ করেছেন। সেই পোনা ও পানি পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।