তাহিরপুরে মামলার জামিনে এসে গ্রাম ছাড়া ৩০ পরিবার

2

তাহিরপুর প্রতিনিধি
তাহিরপুরে দু’পক্ষের মারারির ঘটনায় আদালত থেকে মামলার জামিনে এসে আলী আজগর-হাফিজ উদ্দিন পক্ষের গ্রাম ছাড়ছে ৩০ পরিবার। সেই সাথে তাদের বসতবাড়ির মালামাল, গৃহস্থালির গরু বাছুরসহ অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার খবর পাওয়া গেছে। উপজেলার শ্রীপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের নোয়ানগর গ্রামের আলী আজগর-হাফিজ উদ্দিন ও জয়নাল-আব্দুল কাদির পক্ষদ্বয়ের মধ্যে দুই যুগ ধরে মারামারি মামলা মোকদ্দমা চলে আসছিল। গত ১৫ ফেব্রেæয়ারি আবার দু’পক্ষের মধ্যে মারামারি হয় এবং উভয় পক্ষের লোকজন আহত হন। মারামারির ঘটনায় আলী আজগর-হাফিজ পক্ষের মামলার বাদি হয় আলী আজগর ও জয়নাল-আব্দুল কাদির পক্ষদ্বয়ের মামলার বাদি হয় আব্দুল কাদির। উভয় পক্ষের মামলায় ৩৫ জন করে আসামী দেয়া হয়। আদালত থেকে উভয় পক্ষই রবিবার জামিনে এসেছে।
এলাকাবাসী জানান, গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকেই আজগর-হাফিজ উদ্দিন পক্ষের পরিবারগুলো তাদের পরিবারের আসবাবপত্র, রান্না বান্নার বাসনপত্র ও গৃহস্থালীর গরু বাছুর অন্যত্র সরিয়ে নিচ্ছে।
শ্রীপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মিয়া হোসেন বলেন, গতকাল মঙ্গলবার সকাল থেকেই আজগর-হাফিজ উদ্দিন পক্ষের লোকজনের বসতবাড়ির মালামাল অন্যত্র সরিয়ে নিতে তিনি দেখেছেন। কেউ কেউ পরিবারসহ অন্যত্র আশপাশের গ্রামগুলোতে চলে যাচ্ছেন। নোয়ানগর গ্রাম ছেড়ে চলে যাওয়া পরিবারগুলো হলো, দুলাল মিয়া, আলখাস মিয়া, মান্না, সাহাজ উদ্দিন আলী আজগর, খুশিদ আলী, ফজলুল হক, বিমল মিয়া, ডালিম মিয়া, কপিল উদ্দিন, মিরাজ উদ্দিন, আলী মর্তূজা, হাফিজ উদ্দিন, জুলহাস মিয়া ও জালাল উদ্দিনসহ ৩০ পরিবার। নোয়ানগর গ্রামের জয়নাল-আব্দুল কাদির পক্ষদ্বয়ের মধ্যে আব্দুল কাদির বলেন, আলী আগজর-হাফিজ উদ্দিনসহ অন্যান্য পরিবারগুলো পাশর্^বর্তী জামালগঞ্জ উপজেলার হরিনাকান্দি গ্রাম থেকে ছেড়ে ২০-২৫ বছর আগে নোয়ানগর গ্রামে আসছিল। আসার পর থেকেই নোয়ানগর গ্রামে ঝগড়া বিবাদ লেগেই আছে।