সিলেটেও স্পোর্টিং উইকেটে খেলবে মাশরাফি বাহিনী

3

স্পোর্টস রিপোর্টার
বিগত কয়েকবছরে স্পিন সহায়ক পিচে খেলেই টাইগাররা সাফল্য পেলেও এবার সেই নিয়ম থেকে বের হয়ে আসছে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেও একমাত্র টেস্টে মিরপুরে ঢাকায় স্পোর্টিং উইকেটে খেলে এসেছে বিশাল জয়।
তাই এবার ওয়ানডে সিরিজেও স্পোর্টিং উইকেটে খেলার চিন্তা করছে বাংলাদেশ। সেজন্য সিলেট ক্রিকেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচের একাদশে তিন পেসারের সঙ্গে দুই স্পিনার থাকার সম্ভাবনা আছে।
এদিকে সৌম্যর অনুপস্থিতিতে টি-টোয়েন্টির মতো তামিমের সঙ্গে নাঈম শেখকেই জুটি বাঁধতে দেখা যেতে পারে। প্রথম পাওয়ার প্লে’তে হাত খুলে খেলার সামর্থ্যটা আছে এ তরুণ বাঁহাতির। তাই হয়তো নির্বাচকরা টি-টোয়েন্টির পাশাপাশি ওয়ানডেতেও প্রথমবারের মতো দলে ডেকে নিয়েছেন নাঈম শেখকে। তার কাছ থেকে দলের প্রত্যাশাটাও থাকবে সেটাই।
সেক্ষেত্রে লিটন দাস হবেন ওয়ান ডাউন। তারপর যথাক্রমে মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ, আফিফ। পর্যায়ক্রমে মিরাজ, সাইফউদ্দিন, মাশরাফিরা আসবেন ব্যাটিংয়ে। তবে থার্ড পেসার হিসেবে কে খেলবেন? তা নিয়ে আছে সংশয়। যতদূর জানা গেছে, শফিউল, মোস্তাফিজ ও আলআমিনের মধ্য থেকে একজনকে বেছে নেয়া হবে। আর এ দৌড়ে অন্য দুজনের চেয়ে খানিক এগিয়েই রয়েছেন শফিউল ইসলাম।
প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু বলেন, ‘যদিও দুই ফরম্যাটের গতিপ্রকৃতি ও চরিত্র পুরোপুরি ভিন্ন। তারপরেও টেস্টে যেহেতু স্পোর্টিং উইকেটে সাফল্য এসেছে, তাই ওয়ানডেতেও অমন উইকেটই চাইবো আমরা।’ নান্নু আরও যোগ করেন, ‘সিলেটের পিচ এমনিতেই ব্যাটিং ফ্রেন্ডলি হয়। আমরা চাই, ফ্ল্যাট ট্র্যাক, যেখানে রান উঠবে।’
তাহলে বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ দাঁড়ায় : তামিম ইকবাল, মোহাম্মদ নাঈম শেখ, লিটন দাস, মুশফিকুর রহীম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন ধ্রুব, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মেহেদি হাসান মিরাজ, মাশরাফি বিন মর্তুজা (অধিনায়ক), তাইজুল ইসলাম ও শফিউল ইসলাম/মোস্তাফিজুর রহমান/আলআমিন হোসেন।