রোনালদোর হাসপাতাল বানানোর সংবাদ ভুয়া

2

করোনাভাইরাসে সবার দুর্দশার কথা চিন্তা করে পর্তুগালে নিজের মালিকানাধীন যত হোটেল আছে, সব কটিকে হাসপাতালে রূপান্তরিত করতে যাচ্ছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন এক খবর ছড়িয়েছিল দাবানলের মতো। ছড়িয়ে পড়ার মতো খবরই বটে। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে এত বড় অবদান যে এখনো ব্যক্তিগতভাবে কেউ রাখেননি। বিশ্বব্যাপী অনেক সংবাদমাধ্যমও তাই এ নিয়ে খবর প্রকাশে দেরি করেনি।

দুই দিন আগে এমনই মহানুভবতার আরেকটি খবর প্রকাশিত হয়েছিল। সেটা সম্পূর্ণ ভিন্ন প্রসঙ্গে। প্যারাগুয়ের জেলে আটকে থাকা সাবেক সতীর্থ রোনালদিনহোকে বাঁচাতে ৪ মিলিয়ন ইউরো দিচ্ছেন মেসি। সে খবর অবশ্য পরে মিথ্যা বলে প্রমাণিত হয়েছে। রোনালদোর খবরটি মিথ্যা প্রমাণিত হতে অবশ্য অত সময় লাগেনি। পর্তুগালের বিভিন্ন সাংবাদিকের কিছু টুইটই যথেষ্ট হয়েছে। পর্তুগিজ সাংবাদিকদের এমন জোরালো প্রতিবাদই নিশ্চিত করেছে, রোনালদোর হাসপাতাল বানানোর খবরটি ভুয়া।

করোনাভাইরাসের ভয়াবহতা নিয়ে শঙ্কিত ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোও। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নিজের উদ্বেগের কথা জানিয়ে বিশাল এক পোস্ট লিখেছেন এই পর্তুগিজ তারকা। সবাইকে সতর্ক থাকতে বলেছেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়ম মানতে বলেছেন। বলেছেন মানুষের জীবনের চেয়ে দামি আর কিছু হতে পারে না। এরপরই গতকাল খবর এসেছে, ‘পেস্তানা সিআর সেভেন’ নামে রোনালদোর একটি হোটেল চেইন আছে। সে ব্র্যান্ডের অধীনে পর্তুগালের লিসবন ও ফুনচালের শাখাকে হাসপাতালে রূপান্তরিত করা হচ্ছে। স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম মার্কা, ডেইলি মেইল, গালফ নিউজ, এমনকি ফুটবল ইতালিয়াতেও খবরটা এসেছিল।

খবরে জানানো হয়েছিল হাসপাতালগুলো মূলত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মানুষদের সেবা দেবে। এবং এই হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা নিতে কোনো খরচ হবে না। বিনা মূল্যে চিকিৎসা দেওয়ার ব্যবস্থা করছেন রোনালদো। হাসপাতালে কাজ করা সকল ডাক্তার ও অন্য কর্মকর্তাদের বেতনও দেবেন রোনালদো নিজেই।

এমন খবর ছড়ানোর পর সাংবাদিকেরা টুইটারে সরব হয়েছেন। মানু সেইঞ্জ নামের এক সাংবাদিক লিখেছেন, ‘ভুয়া খবর। পর্তুগালে রোনালদো তাঁর হোটেলকে হাসপাতাল বানাচ্ছেন না। আমি বাসাতেই থাকব।’ ফিলিপে ক্যাতানো নামের আরেক সাংবাদিক লিখেছেন, ‘আরেকটা ভুয়া খবর। এটা সত্য না। সাংবাদিকেরা কেন কোনো তথ্য জানার পর আর কাজ করতে চায় না (তথ্য সঠিক কি না সেটা নিশ্চিত করা) এবং ভুল তথ্য দেয় এমন সূত্র অনুসরণ করে?’

এমন টুইটের পর মার্কা রোনালদোর হাসপাতাল বানানোর খবরের টুইট মুছে দিয়েছে এবং খবরটি নিজেদের সাইট থেকে ফেলে দিয়েছে। সেটি জানিয়ে বিবিসির সাংবাদিক ক্রিস্টফ টেরেউরের টুইট, ‘পর্তুগালে খবরগুলোকে ভুয়া বলে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। যারা খবরটিকে মূলত ভাইরাল করেছিল, সেই মার্কাও এরই মধ্যে প্রতিবেদনটি মুছে দিয়েছে।’