করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে কমলগঞ্জে দোকানপাট বন্ধে প্রশাসন ও পুলিশি অভিযান

9

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি
মৌলভীবাজারে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট এর নির্দেশনায় দোকানপাট, শপিংমল, রাস্তার পাশের দোকান, হোটেল রেস্তোরা বন্ধের নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। এ নির্দেশনার পর কমলগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে অবাদে দোকানপাঠ ও বিপনী বিতান খোলা থাকায় গতকাল বুধবার দুপুরে উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশি অভিযানে দোকানপাট বন্ধ করা হয়। কিন্তু ফার্মেসি, কাঁচাবাজার, হাসপাতাল জরুরী সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান গুলো খোলা রাখার নির্দেশ রয়েছে।
সরজমিন দেখা যায়, হাটবাজারে ফার্মেসি, কাঁচাবাজার, হাসপাতাল জুরুরী সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ছাড়া সকল দোকার পাট বন্ধ রয়েছে। দোকানপাট খোলা থাকছে কিনা, থাকলে ও কোন ধরণের দোকানপাট খোলা থাকছে তা নিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে নানা প্রশ্ন রয়েছে। আগামীতে কি হচ্ছে বা হবে, কোন দুর্ভিক্ষ দেখা দেয় কিনা তা ভেবে সকাল থেকেই ক্রেতারা বাজারে এসে ব্যাংক থেকে টাকা তুলে অতিরিক্তহারে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য সামগ্রী কিনতে দেখা যায়।
বেলা ২টায় আকস্মিকভাবে উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনায় পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা স্থানীয় জনপ্রতনিধিদের নিয়ে কমলগঞ্জ সদরের ভানুগাছ ও শমশেরনগরের হাট-বাজারে অভিযান চালায়। এসময় মানুষজন ফল থেকে শুরু করে কাঁচা বাজার ও মোদী সামগ্রী কেনায় ব্যস্ত ছিলেন। আকস্মিকভাবে পুলিশি অভিযানে দোকানীরা দোকানপাট বন্ধে করে।
কয়েকজন ব্যবসায়ী ও ক্রেতা বলেন, সরকারি এ নির্দেশনা মাইকিং করে প্রচার করলে মানুষজনও বাজারে আসতেন না। তারা আজকের এ অবস্থায় সাধারণ মানুষজনের মাঝে নতুন করে আতঙ্ক বিরাজ করছে বলেও জানান। কমলগঞ্জ থানার ওসি আরিফুর রহমান বলেন, করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে হাট বাজারের জন সমাগম কমাতে মৌলভীবাজারের জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এর স্বাক্ষরিত জরুরি বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে হাটবাজারে এ অভিযান পরিচালিত হয়েছে। এখানে আতঙ্কের কিছু ছিল না।
কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুল হক জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এর নির্দেশনায় এসব বন্ধ রাখার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।