করোনাভাইরাসঃ নতুন আক্রান্ত পাঁচ

7

গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আরও পাঁচজন আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁদের দুজনের বয়স ৩০ থেকে ৪০ বছর। অপর দুজনের বয়স ৪০ থেকে ৫০। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের আরেকজন ষাটোর্ধ্ব। তাঁদের একজনের অন্যান্য শারীরিক সমস্যা আছে।

আজ বৃহস্পতিবার রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।

এই পাঁচজনের একজন বিদেশফেরত, তিনজন বিদেশফেরত স্বজনের সংস্পর্শে এসেছিলেন। অপর ব্যক্তি কীভাবে সংক্রমিত হয়েছেন, সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে পারেনি প্রতিষ্ঠানটি। আক্রান্ত পাঁচজনই পুরুষ।

গতকালই প্রথম আইইডিসিআরের পরিচালক বলেন, বাংলাদেশে সীমিত পরিসরে কমিউনিটি ট্রান্সমিশন হচ্ছে। অর্থাৎ এর আগে শুধু বিদেশফেরত বা বিদেশফেরত ব্যক্তিদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিরা আক্রান্ত হলেও এখন সমাজে ছোট পরিসরে রোগটি ছড়িয়েছে।

এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৪৪। এর মধ্যে ১১ জন সুস্থ হয়ে গেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১২৬ জনের নমুনা সংগ্রহ করেছে আইইডিসিআর। এখন পর্যন্ত নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৩ হাজার ৩২১টি। পরীক্ষা করা হয়েছে ৯২০ জনের।

পরীক্ষা কার্যক্রম সম্প্রসারিত হবে
আইইডিসিআর ছাড়া আরও কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে পরীক্ষা কার্যক্রম প্রসারিত করা হয়েছে বলে আজ সংবাদ সম্মেলনে জানান মীরজাদী সেব্রিনা। জনস্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠান, ঢাকা শিশু হাসপাতাল ও চট্টগ্রামের বিআইটিআইডিতে একই পদ্ধতিতে পরীক্ষা হচ্ছে।

পরীক্ষাগুলোও হবে এলাকাভিত্তিক। অর্থাৎ চট্টগ্রামে আক্রান্ত ব্যক্তির নমুনা আর ঢাকায় পাঠানো হবে না। পরীক্ষা ওখানেই হবে। নমুনা সংগ্রহের সময় কমাতে আইইডিসিআরের টিম গিয়ে আর রোগীর নমুনা সংগ্রহ করবে না। আক্রান্ত ব্যক্তি হাসপাতালে নমুনা দেবেন এবং হাসপাতালই আইইডিসিআরে নমুনা পাঠাবে।

মীরজাদী সেব্রিনা বলেন, শুধু জ্বর–কাশিতে আক্রান্ত হলেই কোভিড-১৯–এ আক্রান্ত নয়। তিনি সমস্যার জন্য ১৬২৬৩–তে যোগাযোগের পরামর্শ দিয়েছেন। চিকিৎসা পরামর্শসহ করোনাভাইরাসের পরীক্ষা প্রয়োজন কি না, আক্রান্ত ব্যক্তিরা সেখানেই খবর পাবেন।