তুচ্ছ ঘটনায় ছুরিকাঘাত, খাদিমপাড়ায় আব্দুল মোহিত শিরিনের অপতৎপরতা

1227

ডেস্ক রিপোর্ট::
তুচ্ছ ঘটনায় জের ধরে ছুরিকাঘাত, মিথ্যা সাজানো মামলা অপতৎপরতায় এলাকার মানুষের ঘুম হারাম এমন কোনো কাজনেই যিনি করেন না, তার নাম আব্দুল মোহিত শিরিন। দক্ষিণ সুরমায় একটি ভবনে জেনারেটরের অপারেটর শিরিনের পেশা জমির দালালি। চাঁদাবাজি থেকে শুরু করে মাদক ব্যবসা, জুয়া খেলা, এলাকার মানুষে জিম্মি করে টাকা দাবি, সরকারি দলের নেতাদের নাম ভাঙিয়ে নিয়মকে অনিয়মে, ন্যায়কে অন্যায় বানিয়ে মানুষের ওপর জুলুম-অত্যাচার চালানোর অনেক অভিযোগ রয়েছে।সিলেট শহরতলির খাদিমপাড়া ইউনিয়নের খিদিরপুর গ্রামে তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে আবিদুর রহমান আব্দুল (৪০) নামের এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাত করে মৃত আমিন উল্লাহর ছেলে আব্দুল মোহিত শিরিন (৪৩)। পরে স্থানীয় জনতা আব্দুল মোহিত শিরিনকে ধরে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেন। কিন্তু থানা থেকে ক্যান্সার রোগী কাগজপত্র দেখিয়ে মুছলেকা দিয়ে বেরিয়ে আসেন। এ ঘটনাটি ঘটে ৫ মে খিদিরপুর গ্রামে।
শুধু এ ঘটনা নয়, এর প‚র্বেও শিরিন এ এলাকার লন্ডনপ্রবাসী সুয়েব আদমজীর বাড়িতে সে চাঁদা দাবি করে। সুয়েব আদমজী এ ব্যাপারে শাহপরান থানায় অভিযোগ করেন। ৩ বৎসর আগেও সে একেই কায়দায় নিজেকে ক্যান্সার রোগী বানিয়ে কাগজপত্র দেখিয়ে মুছলেকা দিয়ে থানা থেকে বেরিয়ে আসে।
গত ৫ মে ছুরিকাঘাত ঘটনার পর এ ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে সাবেক চেয়ারম্যান মাজহারুল ইসলাম ডালিমের বিরুদ্ধে শিরিন শাহপরান থানায় মিথ্যা সাজানো একটি অভিযোগ করে।
শিরিনের সাথে ডালিমের বিরোধ কেন, এর উত্তরে এলাকার আব্দুর রহীম সাবেক বাবুল মেম্বার, সাইদুল ইসলাম জাহাঙ্গীরসহ অনেকে জানান, খিদিরপুর গ্রামের জামে মসজিদের পাশে রাস্তার ধারে শিরিনের একটি মুরগির খামার থাকায় দুর্গন্ধে মসজিদে মুসল্লিরা নামাজ পড়তে পারতেন না। এলাকার মানুষের চলাফেরায় সমস্যা দেখা দিত। মুরগির খামারে দুর্গন্ধে পরিবেশ মারাত্মক হুমকির মুখে পড়ে, এলাকাবাসী শিরিনের মুরগির খামার বন্ধের জন্য তৎকালীন চেয়ারম্যান মাজহারুল ইসলাম ডালিমের কাছে এবং পরিবেশ অধিদপ্তরে অভিযোগ করেন। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে চেয়ারম্যান ডালিম আইন অনুযায়ী এলাকার সর্বসাধারণের মঙ্গলের জন্য শিরিনের খামার পুলিশ নিয়ে সিলগালা করে দেন। পূর্বশত্রæতার জের ধরে বর্তমান এ ঘটনাকে দামাচাপা দিতে নিজেকে বাঁচাতে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা সাজানো অভিযোগ দাখিল করেছে শিরিন।
গ্রামের বাসিন্দা ও ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, খাদিমপাড়া ইউনিয়নের খিদিরপুর গ্রামের প্রবেশ মুখে গত ৫ মে মঙ্গলবার দুপুরে গেইট নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছেন এলাকাবাসী। গেইটের ঢালাই হওয়ায় বাঁশ দিয়ে রাখা হয়েছে। এতে বড় গাড়ি গ্রামে প্রবেশ করতে পারছে না। গ্রামবাসী বড় গাড়ি বাইরে রেখেই গ্রামে প্রবেশ করছেন। ৫ মে মঙ্গলবার দুপুরে গ্রামের মৃত আমিন উল্ল¬াহর ছেলে আব্দুল মোহিত শিরিন (৪৩) গাড়ি নিয়ে বের হতে চায়। তখন গেইটের সামনে থাকা আবিদুর রহমানকে সে গেইটের বাঁশ সরাতে বলে। আবিদুর জানায়, গেইটে ঢালাই দেয়া হয়েছে, বাঁশ সরানো যাবে না। এ কথা বলার সাথে সাথেই শিরিন গাড়ি থেকে নেমে আবিদুর রহমানকে মারধর এবং ছুরিকাঘাত করে। এ সময় পথচারীদের ও এলাকার মানুষের চিৎকার ও হট্টগোল শুনে ঘটনাস্থলে আসেন সাবেক চেয়ারম্যান মাজহারুল ইসলাম ডালিম। তিনি শাহপরান থানায় ওসিকে ফোন করে ঘটনা জানান। পুলিশ এসে হামলায় ব্যবহৃত চাকুসহ আটক করে শিরিনকে থানায় নিয়ে যায়।
আবিদুর রহমান আব্দুল জানান, আব্দুল মোহিত শিরিনের ছুরিকাঘাতে তিনি বাম হাতে কনুইর পাশে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছেন। তার হাতের রগ কেটে যায় এবং ওই স্থানে অস্ত্রোপচার করতে হয়েছে। তার বাম হাতে কনুইর পাশে আঘাতের স্থানে ৩২টি সেলাই লেগেছে। তিনি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।
এ বিষয়ে সাবেক চেয়ারম্যান মাজহারুল ইসলাম বলেন, মানুষের চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে এসে শাহপরান থানার ওসিকে জানাই। এর পরিপ্রেক্ষিতে খাদিম ফাঁড়ির এসআই আব্দুস সালামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে এসে হামলায় ব্যবহৃত চাকুসহ আটক করে শিরিনকে থানায় নিয়ে যায়।