জৈন্তাপুরে পশুর হাটকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ: আহত ২, গ্রেপ্তার ৩

7

জৈন্তাপুর প্রতিনিধি

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার চিকনাগুল বাজারের পশুর হাটকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় দুইজন আহত হয়েছেন।

২১ মে বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে ঘটনার পর পর পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে মামলার এজাহারভুক্ত ৩ জন আসামিকে আটক করে।

এই অবৈধ পশুর হাট জৈন্তাপুরের সাবেক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌরীন করিম ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে উচ্ছেদ করলেও পুনরায় পশুর হাট বসানো হয়। এরপর থেকে বাজার নিয়ে চলে আসছে দখল-পাল্টা ও রক্তাক্তের ঘটনা।

এজাহার সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ দিন ধরে চিকনাগুল বাজারের পশুর হাটের ইজারা নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা চলে আসছে। ২১ মে বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে চিকানাগুল বিসমিল্লাহ রেস্টুরেন্টের সামনে সিলেট-তামাবিল মহাসড়কের পূর্ব পাশের রাস্তার উপর উভয় পক্ষের মধ্যে প্রথমে কথা কাটাকাটি পরে সংঘর্ষে রূপ নেয়। সংঘর্ষের ঘটনায় দুই জন আহত হন।

আহতরা হলেন- চিকনাগুল ইউনিয়নের কহাইগড় ১ম খন্ড গ্রামের মৃত আব্দুল করিমের ছেলে কামাল উদ্দিন (৪৪) ও কহাইগড় ২য় খন্ড কাপনাকান্দি গ্রামের ইসমাইল আলীর ছেলে বাদশা মিয়া (৩৫)।

স্থানীয়রা দ্রুত এগিয়ে এসে হামলাকারীর কবল থেকে গুরুতর আহত কামাল উদ্দিন ও বাদশা মিয়াকে উদ্ধার করে সিলেট এম.এ.জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। আহত দুজনের মধ্যে কামাল উদ্দিনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

অপরদিকে ঘটনার পর কামাল উদ্দিনের ভাই সাহাব উদ্দিন বাদী হয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার মামলা দায়ের করেন।

মামলার অভিযুক্তরা হলেন- পশ্চিম ঠাকুরের মাটি গ্রামের মৃত হাজী লাল মিয়ার ছেলে ইউপি চেয়ারম্যান আমিনুর রশিদ (৫৮), একই ইউনিয়নের কহাইগড় ১ম খন্ড গ্রামের মৃত আজির উদ্দিনের ছেলে মামুনুর রশিদ (২৫), একই গ্রামের মৃত আব্দুস সামাদের ছেলে জহির উদ্দিন উরফে জহির মোল্লা (৪৫), আজির উদ্দিনের ছেলে শাহেদ আহমদ (২৯), মৃত আব্দুস সামাদ মিয়ার ছেলে ইমাম উদ্দিন (৪২), মৃত আব্দুল মনাফের ছেলে সাহাব উদ্দিন (৪০), মৃত মরম আলীর ছেলে আজির উদ্দিন (৫৫), উত্তর বাঘেরখাল গ্রামের মৃত মাহমুদ আলীর ছেলে শাহেদ আহমদ (৩০), সহোদর নাসির উদ্দিন (৩২), উমনপুর গ্রামের মৃত সালেহ আহমদ উরফে ধলা মিয়ার ছেলে ইমরান আহমদ (২৮), মৃত তালেবুর রহমানের ছেলে কামরুজ্জামান (৪২), সহোদর সামছুজ্জামান (৪২), মৃত হাজী মকা মিয়ার ছেলে মনির হোসেন (৫৫), ঠাকুরের মাটি গ্রামের মৃত আজিজুর রহমান ফগার ছেলে নাসির উদ্দিন (৪২) সহ অজ্ঞাত ১০-১৫ জনকে আসামিয় করা হয়।

এ দিকে ঘটনার সংবাদ পেয়ে পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে এজাহারভুক্ত ২নং আসামি মামুনুর রশিদ, ৫নং আসামি শাহেদ আহমদ ও ৬নং আসামি নাসির উদ্দিনকে আটক করে।

জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শ্যামল বণিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মারামারির ঘটনার সংবাদ পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে ৩ জনকে আটক করা হয়। বাদীর এজাহারের ভিত্তিতে মামলা রেকর্ডপূর্বক গ্রেপ্তারকৃতদের ২২ মে শুক্রবার আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।