ত্রাণে বাধার অভিযোগে টাঙ্গাইলে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাময়িক বরখাস্ত

6

সবুজ সিলেট ডেস্ক::
সরকারি ত্রাণ কাজ পরিচালনায় বাধা ও উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে (পিআইও) মারধর ও লাঞ্ছিত করার অভিযোগে টাঙ্গাইল সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নাজমুল হুদাকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। এ বিষয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরুর এর এ নিয়ে মোট ৭২ জন জনপ্রতিনিধিকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হলো। এঁদের মধ্যে ২৩ জন ইউপি চেয়ারম্যান, ৪৫ জন ইউপি সদস্য, একজন জেলা পরিষদ সদস্য, দুজন পৌর কাউন্সিলর ও একজন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান।

সাময়িক বরখাস্তের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ভাইস চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা (নবীন) সরকারি জরুরি ত্রাণের বিষয়ে তাঁর ইচ্ছামতো তালিকা না করে দেওয়ায় টাঙ্গাইল সদর উপজেলার পিআইওকে মারধর, লাঞ্ছিত, প্রাণনাশের হুমকি, হেনস্থা ও সরকারি কাজে অযাচিত হস্তক্ষেপ করেন। এর আগে তিনি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরেরর সেতুর দরপত্রের কাজে বাধা ও দরপত্র বিক্রি না করার জন্য হুমকি দিয়েছিলেন। এ ছাড়া দুর্যোগ সহনীয় ঘর নির্মাণে অবৈধ হস্তক্ষেপ ও পিআইওর কাছে চাঁদা দাবি করেন। তিনি করোনাভাইরাস জনিত মহামারিতে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা হিসেবে কর্মহীনদের মধ্যে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার তালিকা প্রণয়নেও অযাচিত হস্তক্ষেপ করেন।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, তাঁর এসব কর্মকাণ্ড উপজেলা পরিষদে কর্মরত কর্মচারীদের মধ্যে হতাশা ও ক্ষোভের সৃষ্টি করতে পারে। যা সার্বিকভাবে উপজেলা পরিষদের কার্যক্রম বাস্তবায়নে অচলাবস্থার সৃষ্টি ও জনস্বার্থ মারাত্মকভাবে বিঘ্নিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তিনি নিজ পদে বহাল থাকলে উপজেলা পরিষদের কার্যক্রম পরিচালনা করা রাষ্ট্র বা পরিষদের স্বার্থের হানিকর হতে পারে। তাই জনস্বার্থে তাঁকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে।