সংগীতশিল্পী তাপস ও তাঁর স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত

29

দেশের গানের জগতে প্রথম করোনা আক্রান্তের খবর মিলল। গায়ক-সুরকার-সংগীত পরিচালক ও গান বাংলা চ্যানেলের প্রধান নির্বাহী কৌশিক হোসেন তাপস করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁর স্ত্রী গান বাংলা টেলিভিশন চেয়ারপারসন ফারজানা মুন্নীও করোনায় আক্রান্ত। তাঁরা দুজনেই এখন নিজেদের বাসায় আইসোলেশনে আছেন।

বুধবার দুপুরে জানালেন ফারজানা মুন্নী। জানালেন, পাঁচ দিন ধরে তাঁর জ্বর। ব্যথাও ছিল। স্বামী তাপসেরও সর্দি-কাশি ছিল। শুরুতে বিষয়টি নিয়ে খুব একটা না ভাবলেও পরে সিদ্ধান্ত নেন হাসপাতালে পরীক্ষা করার। সোমবার পরীক্ষা শেষে জানতে পারেন স্বামী-স্ত্রী দুজনেই করোনা পজিটিভ। তবে সন্তানেরা কেউ আক্রান্ত হয়নি।

এদিকে করোনাভাইরাস পরীক্ষার প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর তাপস তাঁর ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। সেই পোস্টে তিনি কঠিন সময়টি অতিক্রম করার জন্য সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। তাপস লিখেছেন, ‘যখনই পৃথিবীতে কোনো নেতিবাচক বিষয়ের মুখোমুখি হই, একজন মানুষের সামনে যাই, তিনি আমার স্ত্রী ফারজানা মুন্নী। সে তার আলো ছড়িয়ে সবকিছু ইতিবাচক করে দেয়। এই প্রথম আমরা দুজন একসঙ্গে কোনো কিছুতে ‘পজিটিভ’ হলাম। আমদের দুজনেরই করোনা পরীক্ষার ফল পজিটিভ এসেছে। আমাদের নিয়ে সৃষ্টিকর্তার নিশ্চয় কোনো পরিকল্পনা আছে।’

কৌশিক হোসেন তাপস ও ফারজানা মুন্নী। ছবি-সংগৃহীতকৌশিক হোসেন তাপস ও ফারজানা মুন্নী। ছবি-সংগৃহীত

কৌশিক হোসেন তাপস জানান, তাঁরা দুজনেই মানসিকভাবে বেশ শক্ত আছেন। নিজ বাসাতেই আছেন। মেনে চলছেন চিকিৎসকের পরামর্শ।

ফারজানা মুন্নী বলেন, ‘আমরা কিন্তু করোনার শুরু থেকে সাবধানতা মেনে কাজ করেছি। প্রয়োজন ছাড়া বাইরে কোথাও যাইনি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেছি। আমাদের ধারণা, বাইরে থেকে যে বাজার আসে, হয়তো ওখান থেকে কিছু হয়েছে। সোমবার জানতে পারি করোনা পরীক্ষার ফল পজিটিভ। আমরা দুজনেই আইসোলেশনে। সন্তানেরাও তাদের মতো করে আলাদা আছে। তবে মানসিকভাবে আমরা দুজনেই ভীষণ শক্ত আছি।’

এদিকে করোনাভাইরাস পজিটিভ ফল হওয়ার আগে তাপস-মুন্নী দম্পতির নেতৃত্বে গানবাংলা পরিবার কাজ করেছে করোনাভাইরাস মহামারি প্রতিরোধে। দুর্যোগের শুরুতে মানুষের মানসিক স্বাস্থ্য অটুট রাখতে, গান-কথায় সচেতনতা তৈরিতে দেশি-বিদেশি খ্যাতনামা শতাধিক শিল্পীর অংশগ্রহণে ফেসবুকে নিয়মিত অনুষ্ঠান আয়োজন করেছে তাঁদের চ্যানেল গানবাংলা।

এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ৫০ লাখ টাকা অনুদান প্রদান করে প্রতিষ্ঠানটি। এর বাইরে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনসহ বিভিন্ন মাধ্যমে বিপদগ্রস্ত দুই হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয় গানবাংলার পক্ষ থেকে। পুলিশ সদস্যদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে ১০ জুন পুলিশ সদর দপ্তরে গিয়ে মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদের হাতে স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী তুলে দেন কৌশিক হোসেন তাপস।