জগন্নাথপুরে তরুণীকে আবাসিক হোটেলে তিনদিন আটকে রেখে গণধর্ষণ : চার ধর্ষক গ্রেফতার

77

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি::
জগন্নাথপুরে প্রেমের ফাঁদে ফেলে তরুণীকে গণধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ চারজনকে গ্রেফতার করেছে । আজ বৃহস্পতিবার গ্রেফতারকৃত চার ধর্ষককে সুনামগঞ্জ জেল হাজতে পাঠিয়েছে। গ্রেফতারকৃত ধর্ষক উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের খাশিলা গ্রামের আমির উদ্দিনের ছেলে আনোয়ার হোসেন (২৫), পৌর শহরের হাসিমাবাদ এলাকার পাখি মিয়ার ছেলে ছানা মিয়া (২৬), নেত্রকোনা জেলার বাসিন্দা বর্তমানে পৌর শহরের ইকড়ছই এলাকায় বসবাসকারী মৃত সুরুজ মিয়ার ছেলে অনিক মিয়া (১৯) ও কলকলিয়া ইউনিয়নের বড় মোহাম্মদপুর গ্রামের আব্দুল মানিকের ছেলে সুহেল মিয়া (২৪)।

জানা যায়, উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের খাশিলা গ্রামের আমির উদ্দিনের ছেলে আনোয়ার হোসেন জগন্নাথপুর পৌরসভার হাসিমাবাদ এলাকার অষ্ঠাদশী এক তরুণীর সাথে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তোলে । একপর্যায়ে প্রেমের ফাঁদে পেলে আনোয়ার হোসেন রবিবার (৫ জুলাই) রাতে ওই তরুণীকে নিয়ে জগন্নাথপুর বাজারের একটি আবাসিক হোটেলে উঠে। অষ্ঠাদশী ওই তরুণীকে হোটেলের একটি কক্ষে আটকে রেখে রাতভর আনোয়ার হোসেন সহ তার বন্ধু ছানা মিয়া, অনিক মিয়া ও সুহেল মিয়া ধর্ষণ করে।

তিনদিন ওই তরুণীকে হোটেল কক্ষে আটকে রাখার পর বুধবার (৮ জুলাই) সকালে গণধর্ষীতা ওই তরুণী কৌশলে হোটেল কক্ষ থেকে বের হয়ে নিজ বাড়িতে চলে যায়। এ ঘটনায় ওই তরুণী বাদী হয়ে বুধবার (৮ জুলাই) পাঁচজনের বিরুদ্ধে জগন্নাথপুর থানায় ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করে। পুলিশ অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযান চালিয়ে ধর্ষক চারজনকে গ্রেফতার করেন। অপর অভিযুক্ত হাসিমাবাদ এলাকার ছনর মিয়ার ছেলে সেলন মিয়া (২০) পলাতক রয়েছে ।

জগন্নাথপুর থানার উপ-পরির্দশক (এসআই) অনিক দেব জানান, ওই তরুণীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে চারজনকে গ্রেফতার করে আদালতে এবং ধর্ষীতা ওই তরুণীকে ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য সুনামগঞ্জের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।