জগন্নাথপুর থেকে কোরবানির পশুর চামড়া এনে নগরীতে ডাম্পিং, দুর্গন্ধে এলাকাবাসী

72

স্টাফ রিপোর্টার ::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর থেকে কোরবানির পশুর চামড়া এনে নগরীর আম্বরখানায় উন্মুক্তভাবে ফেলে রাখা হয়েছে। এমন কাজ করেছেন জগন্নাথপুরের এক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান। অপরিকল্পিতভাবে সহস্ত্রাধিক পিছ চামড়া ফেলে রাখায় সকাল থেকে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে পুরো এলাকাময়। দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েন পুরো এলাকাবাসী। পরে রোববার (২ আগস্ট) দুপুরে সিলেট সিটি করপোরেশন অভিযান চালিয়ে চামড়াগুলো অপসারণ করে।

সিসিকের কর্মকর্তারা জানান, শনিবার রাতে জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক সহস্ত্রাধিক পিছ চামড়া জগন্নাথপুর থেকে এনে আম্বরখানা এলাকার একটি খোলা জায়গায় ফেলে রাখেন। সকালে দুর্গন্ধের বিষয়টি স্থানীয় কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদীকে অবহিত করেন এলাকাবাসী। পরে কাউন্সিলরসহ স্থানীয়রা সিটি মেয়রকে অবহিত করলে মেয়রের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে চামড়াগুলো অপসারণ করা হয়।

অভিযানকালে সিসিকের পরিচ্ছন্নকর্মীরা চামড়াগুলো সরিয়ে ট্রাকযোগে ডাম্পিং ইয়ার্ডে নিয়ে যান। সেখানে নিয়ে চামড়াগুলো মাটিতে পুঁতে ফেলা হবে বলে জানিয়েছেন সিসিকের কর্মকর্তারা। চামড়া ডাম্পিং করে রাখা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন সিসিক মেয়র।
বিজ্ঞাপন

মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, আমরা ২৪ ঘন্টার মধ্যেই নগরীর কোরবানির বর্জ্য অপসারেণ করতে সক্ষম হয়েছি। সিসিকের কর্মীরা এজন্য রাতভর পরিশ্রম করেছেন। নগরীতে পরিচ্ছন্ন রাখতে আমরা যখন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি তখন জগন্নাথপুরের একজন ইউপি চেয়ারম্যান খোলা জায়গায় সহস্ত্রাধিক পিছ চামড়া ফেলে রাখেন। ফলে পুরো এলাকায় দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। দুর্গন্ধের খবর পেয়ে আমরা অনুসন্ধা চালিয়ে আম্বরখানা এলাকায় চামড়া স্তুপ আকারে ফেলে রাখতে দেখি।

তিনি বলেন, চামড়া স্তুপ করা ওই চেয়ারম্যানের সাথে আমি যোগাযোগ করেছিলাম। তিনি নিজের ইউনিয়নে চামড়া রাখতে না পেরে নগরীতে এনে স্তুপ করেছেন বলে জানিয়েছেন। এসময় তিনি আমার সাথে উদ্ধত্বপূর্ণ আচরণও করেছেন। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ইতোমধ্যে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনকে আমি বিষয়টি অবহিত করেছি।