আটক যুবক ছেলেধরা নয় মানসিক প্রতিবন্ধী, হাসপাতালে প্রেরণ

4

স্টাফ রিপোর্টার
সিলেটে ছেলেধরা সন্দেহে আটক যুবককে হাসপাতালে পাঠিয়েছেন আদালত। দুপুর আড়াইটার দিকে কোতোয়ালী থানা পুলিশ তাকে আদালতে তুললে বিজ্ঞ বিচারক তাকে মানসিক প্রতিবন্ধী উল্লেখ করে হাসপাতালের মানসিক বিভাগে ভর্তির আদেশ দেন।
বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সিলেট কোতোয়ালী থানার ওসি (তদন্ত) সৌমেন মিত্র। তিনি জানান- ওই ছেলেটির খোঁজে বনানী নামে তার একজন স্বজন থানায় যোগাযোগ করেছিলেন। তাকে হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। তবে তাৎক্ষণিক তিনি তাদের পরিচয় জানাতে পারেননি।
এর আগে আজ বৃহস্পতিবার সকালে সিলেট নগরীর কাজলশাহ এলাকায় ছেলেধরা সন্দেহে ওই যুবককে আটকের পর মারধর করে পুলিশের হাতে তুলে দেয় জনতা। তখনই পুলিশ জানায় ওই যুবক মানসিক প্রতিবন্ধী।
তবে স্থানীয় জনতার দাবি করেন, সকালে রাধারানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীকে ধরে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে স্থানীয়রা তাকে আটক করে পরে পুলিশে সোপর্দ করেন।
খবর পেয়ে আমাদের এ প্রতিবেদক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে ঘটনার শুরু দিকের কাউকেই পাওয়া যায়নি। এসময় প্রায় ৫ জনের সাথে কথা বললে তারা সকলেই ঘটনার শেষের দিকে উপস্থিত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন। একই সাথে তারা শোনেছেন বলে জানিয়েছেন যে, রাধারানী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী মায়ের সাথে স্কুলে যাচ্ছিলেন। এসময় ওই যুবক তাদের দুজনের একজনকে রিকশায় তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এতে সাথে থাকা মা চিৎকার শুরু করলে স্থানীয়রা ওই যুবককে আটক করেন। এসময় তাকে মারধর করা হয় বলেও জানান তারা।
এদিকে ঘটনার পর কোতোয়ালী থানার ওসি (তদন্ত) সৌমেন মিত্র জানিয়েছিলেন- পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে দুই শিক্ষার্থী এবং তাদের অভিভাবক কাউকেই পায়নি। তবে জনগণ ওই যুবককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করলেও ব্যপক জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে মানসিক প্রতিবন্ধী মনে হয়েছে। সে তার নাম-ঠিকানাও বলতে পারছে না। এসময় তাকে আদালতে প্রেরণের বিষয়টিও জানিয়েছিলেন তিনি।

  •