ফের দ্বিধা বিভক্তি সিলেট জাপা

4

স্টাফ রিপোর্টার
সিলেট জাতীয় পার্টিতে সংকট কাটছে না। বরং দিন দিন এ সংকট আরো মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে। সিলেট থেকে বেশ কয়েকজন নেতা কেন্দ্রে স্থান পাওয়ার পর শুরু হয় দলের অভ্যন্তরে কানাঘোশা। আর সর্বশেষ সিলেট জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন নিয়ে একটি পক্ষ প্রকাশ্যে বিদ্রোহ শুরু করে। তৃণমূল নেতাকর্মীদের নিয়ে সিলেটে জেলা জাতীয় পার্টির পাল্টা আহŸায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে দলের শীর্ষ নেতাদেরকেও ইঙ্গিত করে বক্তব্য রাখা হয়। সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন তৃণমূল নেতাকর্মীদের নিয়ে গঠিত সিলেটে জেলা জাতীয় পার্টির নবগঠিত কমিটির অতিরিক্ত সদস্য সচিব বাশির আহমদ। সংবাদ সম্মেলনের পর এর প্রতিবাদ জানান কেন্দ্র ঘোষিত সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহŸায়ক তাজ রহমান ও সদস্য সচিব উছমান আলী চেয়ারম্যান। এ ঘটনায় জাপার নেতারা দুই ধারায় বিভক্ত হয়ে পড়েন। একপক্ষে নেতৃত্বে রয়েছেন, এটিইউ তাজ রহমান ও উছমান আলীসহ শীর্ষ নেতারা। অপরপক্ষে রয়েছেন বাশির আহমদ, ইশরাকুল হোসেন শামীম ও আহসান হাবিব মঈনসহ শীর্ষ নেতারা। এমন পরিস্থিতিতে নেতাকর্মীরা দুই বলয়ে বিভক্ত হওয়ায় আগামী ১৪ মার্চ আসন্য সম্মেলন সফল করা নিয়ে দেখা দিয়েছে সংশয়। সূত্র মতে, সিলেট এক সময় ছিল জাতীয় পার্টির বড় দুর্গ। পার্টির প্রয়াত চেয়ারম্যান প্রেসিডেন্ট হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদও এজন্য সিলেটকে বলতেন তাঁর দ্বিতীয় বাড়ি। কিন্তু এখন আর তা নেই। ধীরে ধীরে সিলেটে জাতীয় পার্টি একেবারে বিলীন হয়ে যাচ্ছে। কর্মীবিহীন হয়ে পড়ছে একসময়ের বড় এ দলটি। কর্মী কম থাকলেও সিলেটে নেতাদের আধিক্য অনেক। এবার দলের কেন্দ্রীয় কমিটিতে সিলেটের ১৪ জন নেতা স্থান করে নিয়েছেন।
এর মধ্যে পার্টির উপদেষ্টা হয়েছেন অ্যাডভোকেট গিয়াস উদ্দিন, আব্দুল্লাহ সিদ্দিকী, সাবেক এমপি মকসুদ ইবনে লামা আজিজ ও সাবেক এমপি সেলিম উদ্দিন। প্রেসিডিয়াম সদস্য হয়েছেন এটিইউ তাজ রহমান। তাকে সিলেট বিভাগীয় অতিরিক্ত মহাসচিবের দায়িত্বও দেয়া হয়েছে।
ভাইস চেয়ারম্যান হয়েছেন, জকিগঞ্জ উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান শাব্বির আহমদ। সাবেক এমপি ইয়াহিয়া চৌধুরী যুগ্ম মহাসচিব, ও সাইফ উদ্দিন খালেদ পেয়েছেন সাংগঠনিক সম্পাদকের পদ। সদস্য হিসেবে কেন্দ্রীয় কমিটিতে জায়গা করে নিয়েছেন চেয়ারম্যান উছমান আলী, এম জাকির হোসেন, মাহবুবুর রহমান চৌধুরী, নাহিদা চৌধুরী, আতাউর রহমান আতা ও মুজিবুর রহমান।
১৪ জন নেতা দলের কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্থান পাওয়ার পর একটি পক্ষ বিদ্রোহ শুরু করে। দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য এটিইউ তাজ রহমান সিলেট বিভাগের অতিরিক্ত মহাসচিব ও প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং জকিগঞ্জের সাইফুদ্দিন খালেদকে কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে পদায়িত করায় এ বিদ্রোহ শুরু হয়। নেতাকর্মীরা এ দু’জনকে ‘অযোগ্য’ দাবি করে সভাও করেন নগরীতে। এ সভায় তাজ রহমান ও সাইফুদ্দিন খালেদকে সিলেটে ‘অবাঞ্চিত’ও ঘোষণা করেছেন।
এ বিদ্রোহ শেষ হতে না হতেই সিলেট জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করা হয়। পার্টি চেয়ারম্যান জিএম কাদের, কো চেয়ারম্যান জিয়া উদ্দিন বাবলু, অতিরিক্ত মহাসচিব রেজাউল ইসলাম ভুইয়া ও প্রেসিডিয়াম সদস্য সুনীল শুভ রায়ের সাথে সিলেট জাপার বেশ কয়েকজন নেতাদের উপস্থিতিতে ১৪ মার্চ সম্মেলনের তারিখ নির্ধারণ করা হয়।
সম্মেলন সফল করতে ১৩ সদস্যের একটি প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্তরা হলেন, আহ্বায়ক এটিইউ তাজ রহমান, সদস্য সচিব উছমান আলী, সদস্য আবদুল্লাহ সিদ্দিকী, মকসুদ ইবনে আজিজ লামা, এডভোকেট গিয়াস উদ্দিন, সাইফুদ্দিন খালেদ, মাহবুবুর রহমান চৌধুরী, আবদুল মালিক খান, এডভোকেট আবদুর রহমান, আলতাফুর রহমান আলতাফ, আবদুস শহীদ লস্কর বশির, দৌলা মিয়া ও আহসান হাবীব মঈন।
আর এ কমিটি মানতে নারাজ দলের একটি অংশ। তারা এ কমিটিকে প্রত্যাখ্যান করে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে ৯১ সদস্য বিশিষ্টের সিলেট সিলেট জেলা তৃণমূল জাতীয় পার্টির আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করেন।
এতে নেতৃত্ব দিচ্ছেন জেলা জাতীয় পার্টির সাবেক সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট জহির উদ্দিন পল্টু ও জেলা জাপা নেতা মো. বাশির আহমদ। তারা ইশরাকুল হোসেন শামীমকে আহবায়ক ও আহসান হাবীব মঈনকে সদস্য সচিব করে ৯১ সদস্য বিশিষ্ট একটি কমিটি ঘোষণা দিলে বিদ্রোহ চরম আকার ধারণ করে।
সিলেটে জাতীয় পার্টির তেমন কোন কার্যক্রম না থাকলেও নেতাদের অভাব নেই। সারা সিলেটে কর্মীর সংকটে রয়েছে এ দলটিতে। ২০১৪ সালে সিলেট ২ ও ৫ আসন থেকে সংসদে জাতীয় পার্টির দুই জন প্রতিনিধি ছিল। এসময় কিছুটা চাঙ্গা ছিল দলটি।
আর গত জাতীয় নির্বাচনে সিলেট থেকে তাদের কেউ বিজয়ী না হওয়ায় কর্মী সংকট আরো বেড়েছে। সিলেট ৫ আসন থেকে সেলিম উদ্দিন বিজয় লাভ করতে না পেরে তিনি তখনই চলে যান যুক্তরাজ্যে। তার সাথে পাড়ি দেন ২ আসনের সাবেক সাংসদ ইয়াহিয়া চৌধুরীও। কিন্তু যুক্তরাজ্য পাড়ি দিলেও তারা দুই জনই দলের কেন্দ্র কমিটিতে স্থান করে নেন।
সিলেট জাতীয় পার্টিতে তৃণমূলের নামে নতুন কমিটি গঠন হওয়ায় আগামী ১৪ মার্চ কীভাবে সম্মেলন হবে এ নিয়ে জাপা পরিবারে নতুন সংকট তৈরি হল। কর্মী সংকট এ দলে তৃণমূল জাপার কর্মীরা যদি আহুত সম্মেলন বয়কট করে তাহলে সিলেট জাপায় সৃষ্টি হতে পারে হ-য-ব-র-ল অবস্থা, এমনটি বলছেন দলের নেতাকর্মীরা।

  •