বন্ধুত্বের মধ্যে হত্যাকান্ড ঠিক না, শ্রিংলাকে মোমেন

4

সবুজ সিলেট ডেস্ক
সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশিদের নিহত হওয়ার ঘটনায় উদ্বেগ জানিয়ে তা বন্ধে উদ্যোগ নিতে ভারতের পররাষ্ট্র সচিবের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।
ঢাকা সফররত ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা সোমবার সৌজন্য সাক্ষাতে গেলে এই আহ্বান জানান তিনি।
বৈঠক শেষে মোমেন সাংবাদিকদের বলেন, “আমি বললাম, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম আমাদের জিরো কিলিং হবে বর্ডারে। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে এ বছরে কিলিংটা অনেক বেড়ে গেছে, এটা আমাদের জন্য দুঃখজনক।
“আমি বললাম, আপনারা আমাদের বন্ধু মানুষ। এই বন্ধুদের মধ্যে কিলিং হওয়া ঠিক না।”
জবাবে ভারতের পররাষ্ট্র সচিব সীমান্ত হত্যা বন্ধে ‘চেষ্টা চালাবেন’ বলে আশ্বাস দিয়েছেন বলে জানান বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।
“উনি বললেন যে উনারা ট্রাই করবেন, এটা যাতে না হয়,” বলেন তিনি।
সীমান্তে হত্যা বরাবরই আসে বাংলাদেশ-ভারত আলোচনায়
বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত নিরাপত্তার আলোচনায় গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসাবে বরাবরই আসে সীমান্ত হত্যাকান্ড। ২০১১ সালে বাংলাদেশি কিশোরী ফেলানীকে হত্যা বিশ্বজুড়ে আলোচনা তৈরি করেছিল।
এরপর দুই দেশের আলোচনায় সীমান্তে হত্যা শূন্যে নামিয়ে আনতে প্রতিশ্রæতি আসে। মাঝে কিছুটা কমলেও সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষীদের গুলিতে বাংলাদেশির মৃত্যু এখন আবার বেড়েছে।
মানবাধিকার সংস্থা আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) হিসাবে দেখা গেছে, ২০১৯ সালে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে ৩৭ জন এবং তাদের শারীরিক নির্যাতনের কারণে ছয়জনসহ মোট ৪৩ জন প্রাণ হারিয়েছেন।
ফেব্রæয়ারির শুরুতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) জানায়, আগের দেড় মাসে সীমান্তে ১১ জন বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন।

  •