কলেজ শিক্ষার্থী মুন্না হত্যাকান্ডের ঘটনায় গোয়াইনঘাটে মানববন্ধন

1

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধি
গোয়াইনঘাট সরকারি কলেজের রাষ্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী নজরুল ইসলাম মুন্নার হত্যাকারীদের দ্রæত গ্রেপ্তারের দাবিতে মানব বন্ধন করা হয়েছে। গতকাল রোববার দুপুরে গোয়াইনঘাট সরকারি কলেজ সম্মুখে গোয়াইনঘাট-সালুটিকর সড়কে এ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
গোয়াইনঘাট সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ ফজলুল হকের সভাপতিত্বে ও কলেজের ছাত্র গোলাম রেজওয়ান রাজিবের পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন কলেজের উপাধ্যক্ষ তপন কৃষ্ণ দে, কলেজ শিক্ষক দেলোয়ার হোসেন বাবর, পুলক রঞ্জন চৌধুরী, আরিফা জোয়ারদার, শামীম আহমদ। শিক্ষার্থীদের মাঝে বক্তব্য রাখেন, নাজিম উদ্দিন নাহিদ, শাহিন আহমদ, এমদাদুর রহমান, রাসেল আহমদ, ডালিম আহমদ।
আয়োজিত মানব বন্ধনে ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ অংশ নেন। এ সময় গোয়াইনঘাট-সালুটিকর-সিলেট সড়কের সব ধরণের যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।
মানববন্ধনে বক্তারা আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে কলেজ ছাত্র মুন্নার খুনিদের গ্রেফতারসহ দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।
উল্লেখ্য, গত ৫ মার্চ বিকেলে নিজ বাড়ি গোয়াইনঘাটের বহরগ্রাম থেকে সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিজ কর্মস্থলে যায় গোয়াইনঘাট সরকারি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান শাখার মেধাবী ছাত্র ইসলাম মুন্না। কর্মস্থল থেকে বেতন তুলে বাজার করার জন্য রাত সাড়ে ৮ টার দিকে জিন্দাবাজার পৌঁছে। এসময় জিন্দাবাজার কৃষি ব্যাংকের সামনে স্থানীয় ফুটপাতের কতিপয় ব্যবসায়ীরা সংঙ্গবদ্ধ হয়ে একজন বৃদ্ধ ক্রেতাকে বেদড়ক মারপিঠ করছিলো। বিষয়টি দেখে নজরুল ইসলাম মুন্না ঘটনার প্রতিবাদ করে এবং ওই ক্রেতাকে মারধর না করার জন্য অনুরোধ করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ফুটপাতের ওই হামলাকারি ব্যবসায়ীরা নজরুল ইসলাম মুন্নার উপরও অতর্কিত হামলা চালিয়ে নজরুলকে ঘটনাস্থলে রেখে পালিয়ে যান। পরে পথচারীরা নজরুল ইসলাম মুন্নাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ওসমানী মেডিকেল কতৃপক্ষ উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে দ্রæত ঢাকা জাতীয় বক্ষব্যাধি হাসপাতালে নজরুলকে পাঠান চিকিৎসকরা। সেখানে যাওয়ার পথে নজরুল ইসলাম মুন্না মৃত্যুবরণ করে।

  •