তাহিরপুরে শিশুর কব্জি কেটে নেয়ার চেষ্টা

17

সবুজ সিলেট ডেস্ক:
সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের পল্লীতে ১০ বছরের এক শিশুর হাতের কব্জি কাস্তে দিয়ে কেটে নেয়ার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে। শিশুটির নাম মঈনুল হোসেন। সে উপজেলার শ্রীপুর(দ.) ইউনিয়নের পাঠাবুকা গ্রামের আব্দুল আলীমের ছেলে। আর এ অভিযোগ উঠেছে একই ওয়ার্ডের পাশের গ্রাম জীবনপুরের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে আহাদ নুরের (৩৮) বিরুদ্ধে।

সোমবার সন্ধ্যায় গরুর জন্য বাড়ির সামনের হাওরে ঘাস কাটতে গেলে আহাদ নুর হাতে থাকা কাস্তে দিয়ে মঈনুলের বাম হাতের কব্জি কাটার চেষ্টা করেন।
তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. সুমন চন্দ্র বর্মণ জানান, রাত আনুমানিক ৮টার সময় জরুরী বিভাগে মঈনুলের প্রাথমিক চিকিৎসা হয়েছে। তার বাম হাতের রগ কেটেছে। এবং কব্জির কাটাও গভীর। এ কারণে উন্নত চিকিৎসার জন্য জেলা শহরে প্রেরণ করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডের সদস্য (ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য) শিমুল আহমেদ বলেন, অভিযুক্ত আহাদ নুর মাদকাসক্ত ও ছিঁচকে চোর। সে নানা অপকর্মের সাথে জড়িত।

মঈনুলের বড় ভাই দিলোয়ার হোসেন বলেন, ছোট ভাইয়ের (মঈনুলের) চিৎকার শুনে আমরা তাকে উদ্ধার করি। বর্তমানে ভাইয়ের চিকিৎসা নিয়ে ব্যস্ত আছি। দ্রুতই এ ঘটনার জন্য আমরা আইনের আশ্রয় নিচ্ছি।

তাহিরপুর থানার ওসি (তদন্ত) মো. শফিকুল ইসলাম জানান, অভিযোগের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

  •