টাঙ্গুয়ার হাওরে পর্যটকেরা ঝুঁকিতে

7

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি
প্রায় দুই বছর ধরে সুনামগঞ্জের টাঙ্গুয়া হাওরের ওয়াচ টাওয়ারটি রয়েছে অরক্ষিত অবস্থায়। টাওয়ারের নিচ থেকে উপড়ের অংশের পাশে ও সিড়িতে লোহার গ্রিল না থাকায় পর্যটক ও দর্শনার্থীদের জন্য ঝুঁকি দেখা দিয়েছে।
জানা যায়, সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের টাংগুয়ার হাওরের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দেখার জন্য দেশী-বিদেশী পর্যটক আসছে প্রতিদিন। পর্যটকদের সুবিধার্থে হাওরের নজরখালী করছ বাগে প্রায় ৬০ফুট উচ্চতার একটি ওয়াচ টাওয়ার নির্মান করে কর্তৃপক্ষ। টাওয়ারের উপরে উঠার জন্য রয়েছে সিড়ি। টাওয়ারের উপরে ও সিড়ির সাইডের অংশে প্রথম দিকে সংযুক্ত ছিল লোহার গ্রিল। কিন্তু এই গ্রিল এখন আর নেই। গ্রিলগুলো চোরেরা রাতের আঁধারে চুরি করে নিয়ে গেছে বলে জানা যায়। ফলে গ্রিল না থাকায় এ পর্যন্ত স্থানীয় লোকজন, পর্যটক ও দর্শনার্থীসহ ২০জনের বেশী আহত হয়েছে।
এক শিক্ষক জানান, হাওরের ওয়াচ টাওয়ারের গ্রিল নেই। কয়েকদিন আগে একটি শিশু এখানে মারাত্মকভাবে আহত হয়েছে। একটু এদিক সেদিক হলে উপর থেকে নিচে পরে মারাই যেত।
টাঙ্গুয়ার হাওরে বেড়াতে সাংবাদিক আহমদ কবির জানান, অরক্ষিত অবস্থায় রয়েছে হাওরে পর্যটকদের সুবিধার স্বার্থে নির্মিত ওয়াচ টাওয়ারটি। টাওয়ারটিতে পূর্বে গ্রিল থাকলেও বর্তমানে নেই। ফলে টাওয়ারের উপর থেকে নিচে নামতে ও উপরে উঠতে গিয়ে সবাই আতঙ্কের মধ্যে থাকেন।
টাওয়ার সংলগ্ন জয়পুর গ্রামের স্থাযী বাসিন্দা ও জয়পুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাদিউজ্জামান জানান, ওয়াচ টাওয়ারের গ্রিল কে বা কারা রাতের আঁধারে চুরি করে নিয়ে গেছে র্দীঘ দিন হল। গ্রিল না থাকায় স্থানীয় লোকজন, পর্যটক ও দর্শনার্থীরা ঝুঁকিতে আছে। তাই জরুরী ভিত্তিতে সিঁড়িতে গ্রিল লাগানো খুবই প্রয়োজন।
শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খসরুল বলেন, আমি কিছুদিন পূর্বে এই ওয়াচ-টাওয়ারে গিয়েছিলাম। ওয়াচ-টাওয়ারটি সিঁড়ি ও উপড়ের অংশে গ্রীল না থাকায় খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। সবার সাথে কথা বলে আলোচনার মাধ্যমে মেরামত করার চিন্তা করছি।
তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল বলেন, এই বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। পর্যটক ও দর্শনার্থীদের নিরাপত্তার বিষয়ে দ্রæত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন। আমার পক্ষ থেকে যা যা করা প্রয়োজন তা করব।
তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বিজেন ব্যানার্জি বলেন, টাওয়ারের উপরে ও সিড়িতে গ্রিল নেই এই বিষয়টি জেলা প্রশাসক স্যারসহ আমরা সবাই দেখেছি। খুব শীঘ্রই সবার নিরাপত্তার স্বার্থে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

  •