বাহুবলে চা শ্রমিক খুনের ঘটনায় পিতা-পুত্র গ্রেপ্তার

8

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি
হবিগঞ্জের বাহুবলে বাঁশ চুরিকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় আরব আলী (৭৫) নামের এক বৃদ্ধ চা শ্রমিক খুন হন। এ ঘটনায় গত বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার আমতলী চা-বাগান এলাকায় অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত শুকয় উড়াংয়ের পুত্র সবিন উড়াং (৪০) ও তার পুত্র অজয় উড়াংকে (২০) গ্রেপ্তার করেছে বাহুবল থানা পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তারকৃতদের কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।
এর আগে গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় উপজেলার ভাদেশ্বর ইউনিয়নের আমতলী চা-বাগান এলাকায় এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত আরব আলী ওই বাগানের মৃত হোসেন আলীর পুত্র।
এদিকে ঘটনার পরদিন নিহতের মেয়ে হালিমা আক্তার বাদি হয়ে দুই জনকে আসামি করে বাহুবল মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ গত বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার আমতলী চা-বাগান এলাকায় অভিযান চালিয়ে সবিন উড়াং ও তার পুত্র অজয় উড়াংকে গ্রেপ্তার করে।
পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ভাদেশ্বর ইউনিয়নের আমতলী চা-বাগানের আরব আলীর পুত্র বাবুল মিয়া ব্যবসায়ী প্রয়োজনে বাঁশ ক্রয় করে তার ঘরের পাশে রাখেন। ঘটনার দিন সে বাড়িতে ফিরে ঘরের পাশে বাঁশগুলো না পেয়ে খোঁজাখুজি শুরু করলে পার্শ্ববর্তী বাসিন্দা সবিন উড়াংয়ের ঘরের পাশে দেখতে পান। এসময় বাবুল মিয়া সবিন উড়াংকে কারণ জিজ্ঞেস করলে তাদের মাঝে কথাকাটি শুরু হয়। এক পর্যায়ে সবিন উড়াং ও তার পুত্র অজয় উড়াং বাবুলের উপর হামলা চালায়।
তৎক্ষণাৎ এই ঘটনার খবর পেয়ে বাবুলের পিতা দৌড়ে ঘটনাস্থলে আসেন। এসময় সবিন উড়াং আরব আলীর পেটে লাথি মারলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে আরব আলীকে আশংকাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে শ্রীমঙ্গল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করা হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি ঘটলে দ্রæত মৌলভীবাজার সদর আধুনিক হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
বাহুবল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, বিষয়টি জানার পরপরই আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। ইতিমধ্যে ঘটনার সাথে জড়িত আসামি দুই জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আসামিদেরকে বৃহস্পতিবার কোর্টের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

  •