ফেসবুকে পরিচয় , সিনেমায় কাজের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণ | র‌্যাবের খাঁচায় লন্ডন প্রবাসী

115

শিপন আহমদ, ওসমানীনগর
সিনেমায় কাজের সুযোগ করে দেবার প্রলোভন দেখিয়ে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে ওসমানীনগরে ধর্ষণ মামলার গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি লন্ডন প্রবাসী সাহেদ আহমদ (৩৮)-কে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-৯ এর একটি টিম। গত শনিবার রাতে র‌্যাব সদস্যরা উপজেলার উমরপুর ইউনিয়নেরে ইজলশাহ এলাকায় অভিযান চালিয়ে ধর্ষক লন্ডন প্রবাসী সাহেদ আহমদ (৩৮)-কে গ্রেপ্তার করেন। গ্রেপ্তারকৃত প্রবাসী ইজলশাহ গ্রামের সুন্দর আলীর পুত্র। গ্রেপ্তারের পর শনিবার দিবাগত রাতে র‌্যাব সদস্যরা তাকে ওসমানীনগর থানাপুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন। থানাপুলিশ গ্রেপ্তারকৃত সাহেদকে আজ রোববার আদালতে প্রেরণ করে।
২০১৭ সালের ঢাকার মগবাজার এলাকার সোনিয়া নামের এক তরুণী (২২) বাদি হয়ে ঢাকা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩ আদালতে লন্ডন প্রবাসী সাহেদ আহমদসহ একই এলাকার আরো দুজনের নামসহ ৪ জনের নামোল্লেখ করে মামালা দায়ের করেন।
মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ফেসবুকে পরিচয়ের সূত্র ধরে সিনেমা নির্মাতা পরিচয়ে ওই তরুণীকে সিনেমায় অভিনয়ের সুযোগ করে দেবার প্রলোভন দেখিয়ে তার সঙ্গে সম্পর্কে স্থাপন করেন সাহেদ। ২০১৬ সালের ডিসেম্বর মাসে সিনেমার পরিচালকের সাথে দেখার করার কথা বলে ওই তরুণীকে আসতে বলেন। শুটিংয়ের কথা বলে ১৯ ডিসেম্বর শাহেদ তরুণীর মগবাজারস্থ বাসা থেকে একটি হোটেলে নিয়ে যান। সেখানে তার সহযোগীরা আগে থেকেই ওৎ পেতে ছিল। হোটেলে সিনেমার পরিচালক আসবেন এমন আশ্বাসে সাহেদ তরুণীকে অপেক্ষা করেতে বলে এবং বাইরে থেকে কিছু খাবার এবং কোমল পানীয় নিয়ে আসে। কোমল পানীয় পান করার পর তরুণী অজ্ঞান হয়ে পড়েন। জ্ঞান ফেরার পর তরুণী দেখতে পান ওই রুমে সাহেদ বসা এবং তার শরীরে কোনো বস্ত্র নেই। এমন অবস্থায় সাহেদ তরুণীর কাছে তাকে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেন। তার সহযোগীরা সেই ঘটনার ভিডিওচিত্র ধারণ করেন এবং সেটি ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার হুমকি দেন। সাহেদের সহযোগীরা ধর্ষণের ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেবার হুমকি দিয়ে তরুণীর কাছে থেকে বিভিন্ন সময় ৩ লক্ষ টাকা আদায় করেন। এ ব্যাপারে ২০১৭ সালের জুলাই মাসে ওই তরুণী রমনা থানায় মামলা করতে যান। কিন্তু সেখানে মামলা দায়ের করতে না পেরে ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩ আদালতে ওই তরুণী একই বছরের আগস্ট মাসে মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর থেকে লন্ডন প্রবাসী সাহেদ আহমদ পলাতক ছিলেন। গত শনিবার দিবাগত রাতে র‌্যাব-৯ এর একটি টিম সাহেদকে গ্রেপ্তার করে।
ওসমানীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ রাশেদ মোবারক সাহেদ গ্রেপ্তার হওয়ার কথা জানিয়ে বলেন, তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলার গ্রেপ্তারি পরোয়ানা ছিল।

  •