করোনা ভাইরাস ভোলাগঞ্জ ছাড়া বিভিন্ন স্থলবন্দর দিয়ে ভারত থেকে আমদানি রপ্তানি চালু

5

স্টাফ রিপোর্টার
নভেল করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণের সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশি যাত্রীদের ভারতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। গত শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে কোনো বাংলাদেশি পাসপোর্টধারী ভারতে যেতে পারছেন না।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে তামাবিল স্থলবন্দরের অভিবাসন বিভাগের একজন কর্মকর্তা জানান, ‘করোনা ভাইরাস প্রতিরোধের লক্ষ্যে ভারত সরকার অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশি যাত্রীদের সে দেশে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে শনিবার কোন বাংলাদেশী যাত্রী ভারতে প্রবেশ করেনি। তবে বালাংদেশে অবস্থানকারী ভারতীয় নাগরিকদের ভারতে যেতে কোন বাধা দেয়া হয়নি।’
তিনি আরো জানান, বাংলাদেশীরা ভারতে যেতে না পারলেও ভারত থেকে ফিরেছেন। শনিবার ভারত থেকে ৬০-৭০ জন বাংলাদেশে ফেরত আসেন। যাত্রীরা যেতে না পারলেও ভোলাগঞ্জ স্থলবন্দর ছাড়া বাকি স্থলবন্দর দিয়ে পাথরসহ অন্যান্য মালামাল আমদানী চালু রয়েছে।
শুধু তামাবিল নয় সিলেট বিভাগের অন্য বন্দর ও শুল্ক স্টেশন দিয়েও মালামাল আমাদানী-রপ্তানি চালু থাকলেও বাংলাদেশীরা ভারতে যেতে পারছেন না। তামাবিলে আসা ভারতীয় ট্রাক চালকদের করোনার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে।
নগরীর আমদানীকারক ব্যবসায়ী প্রবীর দেবনাথ জানান, তামাবিল স্থলবন্দর দিয়ে মালামাল আসলেও বাংলাদেশী যাত্রীরা যেতে পারছেন না।
ভোলাগঞ্জ চুনাপাথর ইম্পোর্টার্স গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান মিন্টু জানান, ভোলাগঞ্জ দিয়ে গত কিছুদিন ধরে সব ধরণের আমদানি-রপ্তানী বন্ধ রয়েছে। তবে, সোমবার থেকে পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হতে পারে বলে জানান তিনি।

  •