বালাগঞ্জে বড়ভাঙ্গা নদী খনন কাজ শতভাগ বাস্তবায়ন করার আশ্বাস

47

এসএম হেলাল, বালাগঞ্জ
গোলাপগঞ্জ, দক্ষিণ সুরমা, ওসমানীনগর ও বালাগঞ্জে চলমান বড়ভাঙ্গা নদীর পুনর্খনন কাজ আগামী দুই মাসের মধ্যে শেষ হচ্ছে। প্রকল্পের প্রায় ৬০ ভাগ কাজ হয়েছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে আগামী ৩১ মে’র মধ্যে কাজ শেষ করে প্রতিবেদন দাখিলের কথা রযেছে। প্রায় ১৫ কোটি টাকা ব্যয়ে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে এসব এলাকায় কৃষি উৎপাদন, মৎস্য আহরণ এবং পরিবেশ সুরক্ষাসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধি পাবে। সুষ্ঠুভাবে শতভাগ কাজ বাস্তবায়নের জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডসহ সংশ্লিষ্ট সকলে আন্তরিক চেষ্টা চালিযে যাচ্ছেন। গত রোববার দুপুর প্রকল্প এলাকা পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানিয়েছেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপসহকারী প্রকৌশলী মো. গোলাম বারী। এ সময় তিনি চলমান কাজের বিভিন্ন অগ্রগতি তুলে ধরেন। তিনি কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতা কামনা করে এ ব্যাপারে ধৈয্য ধারণের আহবান জানান। এসময় উপস্থিত স্থানীয় উছমানপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার আলী আনু, রঘুপুর গ্রামের মুরব্বী ছুরাব আলী প্রমূখ বক্তিবর্গ উৎসাহ প্রকাশ করে জানান খনন সঠিক ভাবে পুনর্খনন কাজ শেষ হলে একাবাসী উপকৃত হবেন।
গত রোববার সরেজমিন পরিদর্শনকালে দেখা গেছে, বড়ভাঙ্গা নদীর স্থানীয় রঘুপুর এলাকায় খননকাজ চলছে। এসময় তিনি পুনর্খনন কাজের অনিয়মের বিষয়ে জানতে চাই তিনি বলেন, এখনো কাজ শেষ হয়নি। তাই অনিয়ম ও দুর্নীতি বলবো না। তবে কাজের ভুল-ত্রæটি রয়েছে। এসব সমাধান করা হবে। একই স্থানে দ্বিতীয় দফায় কাজ করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, প্রকল্প এলাকার যেসব স্থানে কাজে ভুল-ত্র“টি রয়েছে পর্যায়ক্রমে তা মেরামত করা হচ্ছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, দেশের ৬৪টি জেলার অভ্যান্তরস্থ জেলার মধ্যে ছোট নদী ও বড় জলাশয় পুর্নখনন কাজ প্রকল্পর আওতায় স্থানীয় সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর প্রচেষ্ঠায় এবং পাউবোর তত্ত¡াবধানে সিলেটের বালাগঞ্জ, ওসমানী নগর, গোলাপগঞ্জ ও দক্ষিণ সুরমা এ চারটি উপজেলা অংশের ৪৭.৬৫ কিলোমিটার নদী খনন কাজ শুরু হয়েছে। এসব নদী খননের বাস্তবায়িত হলে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জলাশয়ের নিকটবর্তী গরিব মৎস্যজীবী ও সাধারণ জনগণ সেচ সুবিধাসহ মৎস্য চাষের সুবিধা পাবে। খননের অংশ হিসেবে প্রথম পর্যায়ে বড়ভাঙ্গা নদী পুর্নখনন কাজের একাংশ বাস্তবায়ন করছে সুহেল এন্টারপ্রাইজ নামের একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। এদিকে চলমান নদী পুর্নখনন কাজ নিয়ে স্থানীয় এলাকাবাসী নানা অনিয়মের অভিযোগ করে আসছেন।
উল্লেখ্য, বড়ভাঙ্গা নদীর পুর্নখনন কাজে অনিয়মের ব্যাপক অভিযোগ পাওয়া পর স্থানীয় জনসাধারণের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ‘দৈনিক সবুজ সিলেটে’ গত শুক্রবার ‘বালাগঞ্জে বড়ভাঙ্গা নদী খননে ব্যাপক অনিয়ম’ শিরোনামে সরেজমিন প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত রোববার পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপসহকারী প্রকৌশলী মো. গোলাম বারী উক্ত প্রকল্প পরিদর্শন করেন।

  •