বড়লেখায় কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি বহিষ্কার

6

বড়লেখা প্রতিনিধি
মৌলভীবাজারের বড়লেখা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ওলিউর রহমান জুনেদকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়েছে। নিজ দলের কর্মী জাহিদুল ইসলাম তৌফিককে ছুরিকাঘাতে আহত করার ঘটনায় তাকে বহিষ্কার করা হয়।
বাংলাদেশ ছাত্রলীগের মৌলভীবাজার জেলা শাখার সভাপতি আমীরুল হোসেন চৌধুরী (আমিন) ও সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আলমের গত রোববার স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।
এদিকে তৌফিককে ছুরিকাঘাতে আহত করা ও টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় বড়লেখা সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ওলিউর রহমান জুনেদ, তার ভাই তাজিম আহমদ, ছাত্রলীগ নেতা কাওছার আহমদ, জীবন মিয়া ও ইমরান আহমদের নামে থানায় মামলা হয়েছে। আহত ছাত্রলীগ কর্মীর বাবা আব্দুল মুহিত বাদি হয়ে শনিবার রাতে বড়লেখা থানায় এই মামলা করেন।
বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইয়াছিনুল হক মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘ছাত্রলীগ কর্মীকে আহত করা ঘটনায় ৫ জনের নামে মামলা হয়েছে। মামলার এজাহার নামীয় আসামিদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে।’
জানা গেছে, ফেসবুকে দেওয়া ছবিতে মন্তব্যের জের ধরে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ওলিউর রহমান জুনেদের নেতৃত্বে নিজ দলের কর্মী জাহিদুল ইসলাম তৌফিককে ছুরিকাঘাত করা হয়। গত শুক্রবার পৌর শহরের উত্তর চৌমুহনী এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। এসময় তার সাথে থাকা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নগদ ৪ লাখ টাকা ও একটি মুঠোফোন ছিনিয়ে নেওয়া হয়। পরে তারা তাঁকে কিল-ঘুষি মেরে ফেলে যান। স্থানীয় লোকজন তৌফিককে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য আহত ছাত্রলীগকর্মীকে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
বড়লেখা উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক জুনেদ আহমদ বলেন, কর্মীকে ছুরিকাঘাত করে জুনেদ সংগঠনের গঠনতন্ত্র পরিপন্থি কাজ ও দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছেন। এজন্য জেলা নেতৃবৃন্দ তাকে সাময়িক বহিষ্কার করেছেন। বিষয়টি স্থানীয় সংসদ সদস্য ও পরিবেশ মন্ত্রীকে জানিয়েছি।

  •