সিলেটে আরো ৬২ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে

18

সবুজ সিলেট ডেস্ক:
বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস। লাফিয়ে বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস হানা দিয়েছে বাংলাদেশেও। এখন পর্যন্ত মোট ৩৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে। আর মারা গেছেন ৩ জন। এমন পরিস্তিতে করোনা প্রতিরোধে বাড়ছে হোম কোয়ারেন্টাইনের সংখ্যা। প্রবাস থেকে দেশে আসা সকলকে বাধ্যতামূলক ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হচ্ছে। দিন দিন বাড়ছে হোম কোয়ারেন্টাইনের সংখ্যা।

সিলেট জেলায় হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন নতুন আরো ৬২ জন। এছাড়াও হাসপাতালের কোয়ারেন্টাইনে আছেন ২ জন। আর ৩ জন হাসপাতালের কোয়ারেন্টাইন থেকে বাসায় ফিরেছেন। সব মিলিয়ে সিলেট জেলায় মোট হোম কোয়ারেন্টাইনের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮৬২ জন। তবে সিলেটে এখনো আইসোলেশনে কোন রোগী ভর্তি নেই।

মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) দুপুরে সিলেট ভয়েসকে বলে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সিলেটের সিভিল সার্জন ডা. প্রেমানন্দ মণ্ডল।

এদিকে করোনা প্রতিরোধে সিলেট জেলার সকল বিপনিবিতান বন্ধ করা হয়েছে। একই সাথে প্রয়োজন ছাড়া কাউকে ঘর থেকে বের না হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। কেবল তাই না, সিলেট জেলার সকল উপজেলায় চলছে করোনা প্রতিরোধে সচেতনতামূলক প্রচারণা। প্রশাসনের পক্ষ থেকেতো এ প্রচারণা আছেই সেই সাথে ব্যাক্তি বা সংগঠনের পক্ষ থেকে চলছে জোর প্রচারণা। বিশেষ করে সকল জনসাধারণকে প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বের না হতে কিংবা চলার ক্ষেত্রে মাস্ক ব্যবহার করা, নিয়মিত হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত পরিষ্কার করাসহ নানা রকম সচেতনতামূলক প্রচার চলছে।

অপরদিকে নগরীর বিপনিবিতান ও রাস্তার পাশের টং দোকান বন্ধ থাকায় অনেকটা ফাঁকা হয়ে গেছে সিলেট নগরী। নগরীর কোথাও কোন জনসমাগম চোখে পড়েনি। এমনকি গাড়ি চলাচলও খুব সামান্য হয়ে গেছে। কেবল তাই না খাবার রেস্টুরেন্টেও নেই ভিড়। আর বাইরে যারা চলাচল করছেন তাদের সকলেই মাস্ক, হ্যান্ড গ্লাবস ব্যবহার করছেন।

  •