গাইবান্ধায় প্রবাসীর সংস্পর্শে এসে ২ নারী করোনায় আক্রান্ত

5

 

সবুজ সিলেট ডেস্ক

গাইবান্ধায় নতুন করে আরও দুই নারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট চারজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেন। শনিবার (২৮ মার্চ) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গাইবান্ধার সিভিল সার্জন ডা. এ বি এম আবু হানিফ। তিনি জানান, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী মা ও ছেলের সংস্পর্শে এসে ওই দুই নারী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গত ২৩ মার্চ ঢাকা থেকে আইইডিসিআর-এর তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল গাইবান্ধায় এসে বিদেশফেরত হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তি এবং করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আমেরিকা প্রবাসী মহিলা ও তার ছেলের সংস্পর্শে আসা লোকজনের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় নিয়ে যান।

সেখান থেকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে গতকাল শুক্রবার রাতে ফ্যাক্স বার্তায় জানানো হয়, আমেরিকা প্রবাসী মহিলার বোন ও বিয়ের কনের দেহে করোনাভাইরাসের জীবাণু পাওয়া গেছে। এই রিপোর্ট পাওয়ার পর শহরের খা-পাড়ার হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা আমেরিকা প্রবাসী মহিলা, তার বোন ও তার ছেলেকে গাইবান্ধা জেলা সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে রাখা হয়।

এছাড়া ওই আমেরিকা প্রবাসী নারীর সংস্পর্শে আসা বিয়ের কনেকে সদর উপজেলার নিজ বাড়ির হোম কোয়ারেন্টিন থেকে সুন্দরগঞ্জ উপজেলা সদরের আইসোলেশন ইউনিটে রাখা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২২ মার্চ গাইবান্ধায় প্রথম দুজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হন। তারা যুক্তরাষ্ট্র ফেরত প্রবাসী, সম্পর্কে মা-ছেলে। বর্তমানে তারা শহরের নিজ বাসায় হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন। যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফিরে ১১ মার্চ থেকে ১৫ মার্চ পর্যন্ত তারা সাদুল্যাপুর ও সুন্দরগঞ্জে দুটি বিয়ের দাওয়াতে অংশ নেন। এছাড়া নাকাইহাটের শ্বশুরবাড়িতেও অবস্থান করেন তারা।

খবর পেয়ে আইইডিসিআর-এর প্রতিনিধি দল গাইবান্ধায় এসে আক্রান্ত দুই প্রবাসীর সংস্পর্শে থাকা দেড় শতাধিক আত্মীয় ও পরিবারের সদস্যের অনেকের স্বাস্থ্য পরীক্ষায় নমুনা সংগ্রহ করেন। বুধবার তারা ঢাকায় ফিরে যাওয়ার পরে নতুন করে দুজন করোনায় আক্রান্তের তথ্য জানালেন জেলা প্রশাসক।

এদিকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, জেলার ৭টি সরকারি হাসপাতালে মোট ৪৮১টি বেড রয়েছে। এর মধ্যে করোনার জন্য প্রস্তুতকৃত বেডের সংখ্যা ৩৫টি।

 

  •