দিল্লীতে তাবলিগে অংশ নেয়া ৩ বাংলাদেশি করোনা আক্রান্ত

11

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ভারতের রাজধানী দিল্লীর নিজামউদ্দিন মারকাজে অনুষ্ঠিত তাবলিগ জামাতে অংশ নেওয়া ৩ বাংলাদেশি করোনায় আক্রান্ত বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।
বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের পালওয়াল এলাকার একটি গ্রামে ওই ৩ জনের করোনা পরীক্ষা করা হয়। তাতে তাদের শরীরে ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এ তথ্য জানায়।
রাজ্যের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ব্রাহাম দীপ সিন্ধুর বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘হিন্দুস্তান টাইমস’ জানায়, করোনা ভাইরাস পরীক্ষায় ভারতে অবস্থান করা ৩ বাংলাদেশী নাগরিকের শরীরে করোনার উপস্থিতি শনাক্ত করা হয়েছে।
এদিকে জনসমাগমের মধ্য দিয়ে করোনাভাইরাস ছড়ানোর অভিযোগে মামলা দায়েরের পর ভারতের তাবলিগ জামাতের প্রধান মাওলানা সাদ কান্ধলভিসহ সাত জনের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে।
দিল্লি পুলিশ সূত্রে এনডিটিভি জানিয়েছে, উত্তর প্রদেশের মোজাফফরনগরসহ দিল্লির বিভিন্ন স্থানে তল্লাশি চালিয়েও তাদের সন্ধান পাওয়া যায়নি। তবে মাওলানা সাদকে খুঁজে না পাওয়া গেলেও অডিও বার্তায় তিনি সেলফ কোয়ারেন্টিনে থাকার কথা জানিয়েছেন। অনুসারীদের দিয়েছেন সরকারি নির্দেশনা মানার পরামর্শ।
এনডিটিভি জানিয়েছে, মাওলানা সাদও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। মামলা দায়েরের পর তার খোঁজে অন্তত ১৪টি হাসপাতালে তল্লাশি চালানো হয়েছে।
বুধবার প্রকাশ হয়েছে মাওলানা সাদের দুটি অডিও ক্লিপ। তিনি দাবি করেছেন ডাক্তারের পরামর্শে দিল্লিতে সেল্ফ কোয়ারেন্টিনে আছেন।
মারকাজ ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত প্রথম অডিও বার্তায় তাকে বলতে শোনা যায়, মৃত্যুর সবচেয়ে ভালো জায়গা হলো মসজিদ। তিনি জোর দিয়ে বলেন করোনাভাইরাস তার অনুসারীদের কোনও ক্ষতি করতে পারবে না।
দ্বিতীয় অডিও বার্তায় তিনি তাবলিগের সদস্যদের সরকারি নির্দেশনা মেনে নিয়ে ভিড় এড়িয়ে চলার আহ্বান জানান। এতে তিনি বলেন, ‘নিঃসন্দেহে এখন দুনিয়ায় যা কিছু ঘটছে তা মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের ফল। আমাদের বাড়িতে থাকা উচিত, আল্লাহর ক্রোধ প্রশমনের সেটাই একমাত্র পথ। প্রত্যেকের ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চলা এবং প্রশাসনের সঙ্গে সহযোগিতা করা উচিত। আমাদের সদস্যরা যেখানেই থাকুন না কেন তারা প্রশাসনের আদেশ মেনে চলুন’। তিনি বলেন, ‘কোথায় আছেন সেটা বিষয় নয়, নিজেকে কোয়ারেন্টিনে রাখুন। এটা ইসলাম ও শরিয়ত বিরোধী নয়।’

  •