আম্বরখানা মণিপুরি পাড়ায় স্বঘোষিত ‘লকডাউন’

11

 

সবুজ সিলেট ডেস্ক

বর্তমানে আতঙ্কের নাম করোনাভাইরাস। চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পোড়া এ ভাইরাস মৃত্যুপুরী বানিয়েছে ইতালি, স্পেনের মতো শক্তিশালী দেশকে। নিস্তার দিচ্ছে না ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য-যুক্তরাষ্ট্রকেও। ভাইরাসের বিস্তার হয়েছে বাংলাদেশেও। তাই দেশে লকডাউন করা না হলেও জনগণকে ঘরে রাখতে সরকারের পক্ষ থেকে নেয়ে হয়েছে নানা উদ্যোগ। নামানো হয়েছে সেনাবাহিনী। তবুও কিছুতেই যেন থামছে না মানুষ। অথচ শুভ সংবাদ হল সরকারি ভাবে লকডাউন করা না হলেও করোনা প্রতিরোধে নিজস্ব উদ্যোগে ‘লকডাউন’ নীতি পালন করছে সিলেট নগরীর আম্বরখানা মণিপুরি পাড়াবাসী।

আম্বরখানা মণিপুরি পাড়া এলাকার প্রবেশ মুখের মূল ফটকে হাতে লিখে কাগজের নির্দেশনা লাগানো হয়েছে। এতে বাংলা এবং ইংরেজি উভয় ভাষায় লাল রঙ দিয়ে সাদা কাগজে লেখা হয়েছে ‘লকডাউন, বহিরাগত প্রবেশ নিষেধ। করোনা প্রতিরোধে সামাজিক সচেতনতা গড়ে তুলুন।’

শনিবার (৪ এপ্রিল) সরেজমিনে এসময় কথা হয় আম্বরখানা মণিপুরি পাড়ার বাসিন্দা সঞ্জয় সিংহ তপু’র সাথে। তার সাথে কথা বলে জানা যায় দেশে করোনা প্রতিরোধে জনসমাগম বন্ধে সকল প্রতিষ্ঠান ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দোকান ছাড়া বাকি সকল কিছু বন্দের নির্দেশনার শুরু থেকে আম্বরখানা মণিপুরি পাড়া ‘সোশাল ফেয়ার এসোসিয়েশন’ এর পক্ষ থেকে পুরো পাড়া লকডাউন করা হয়। একই সাথে পাড়ার বাইরে থেকে খুব প্রয়োজনে কেউ প্রবেশ করলে তাকে স্প্রে করিয়ে প্রবেশ করানো হয়। সকাল থেকে রাত ১১ টা পর্যন্ত পাড়ার যুব সমাজ মিলে ডিউটি করতেন। বর্তমানে স্প্রের বিষয়টি না থাকলেও লকডাউন নীতি পালন হচ্ছে। পাড়ার কেউ খুব প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হচ্ছে না আবার বহিরাগত কাউকে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না।

এদিকে নিজস্ব উদ্যোগে তাদের ‘লকডাউন’ নীতিকে স্বাগত জানিয়েছেন প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা। তাদের মতে নিজ নিজ পাড়া মহলায় এরকম নিজস্ব উদ্যোগে জনসচেতনতা গরে তুললে করোনা প্রতিরোধ করা সম্ভব।

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) জেদান আল মুসা তাদের এ নীতিকে সাধুবাদ জানিয়ে বলেন, এটি অবশ্যই প্রশংসনীয় একটি উদ্যোগ। এজন্য আমরা তাদেরকে সাধুবাদ জানাই। আমরা চাইবো প্রতিটি পাড়ায় এমন উদ্যোগে মহল্লাবাসী এগিয়ে আসবেন।

 

  •