খোলা চিঠি

60

বরাবর,

ড. মোঃ আব্দুস শহীদ এমপি মহোদয়

নেছার আহমদ এমপি মহোদয়

মোঃ শাহবুদ্দীন এমপি মহোদয়।

 

আসসালামু আলাইকুম। আজ সারা বিশ্বে করোনা ভাইরাসের কারণে এক স্থবিরতা নেমে এসেছে। বাংলাদেশ এবং দেশের মানুষ কেউ হয়ত আমরা নিরাপদ নই। আপনারাও আপনাদের অবস্থানে থেকে এলাকার মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন এবং আশা করি সতর্ক অবস্থানে থেকে কাজ করে যাবেন। আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারণে এখনও আমরা অন্যান্য দেশের মত ভয়াবহ পরিস্থিতির স্বীকার হইনি।তবে সময় কখন কি করে তা বলা যায় না। আজ গার্মেন্টস শিল্পের জন্য সারা দেশের মানুষ আওয়াজ তুলেছে বিধায় এই শিল্পের কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। আজকে আপনাদের বরাবরে যে কারণে লিখা তা হচ্ছে আমাদের মৌলভীবাজার জেলা চা শিল্প অধ্যুষিত এলাকা এবং এই শিল্পের শ্রমিক যাদেরকে আমরা চা শ্রমিক বলি তারা কোন ধরনের লোকচুরি না করে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আপনাদেরকে বার বার বিজয়ী করে নিয়ে আসছে। এখন যেহেতু নৌকা মার্কার সরকার সেহেতু তাদের প্রতি আমাদের একটু বিশেষ নজর দেওয়া প্রয়োজন। আর আজকের এই দুঃসময়ে তাদের প্রতি বিশেষ ভাবে নজর দেয়ার জন্য আপনাদের দৃষ্টি আকর্ষন করছি। চা শ্রমিকের দাবি এই দুঃসময়ে তাদের বাগানের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকবে এবং সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে তারা নিজেদেরকে সবার মতো নিরাপদে রাখবে। সারা বাংলাদেশ যেখানে লক ডাউনের পথে সেখানে তাদের বঞ্চিত করাটা কতটুকু যৌক্তিক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে কেউ হয়ত ভুল ধারনা দিয়েছে যে চা শ্রমিকরা নিরাপদ। কিন্তু আপনারা সবাই চা শ্রমিককে নিয়ে সেই ছাত্র রাজনীতির সময় থেকে কাজ করে যাচ্ছেন। তারা আজকের এই দিনে কতটুকু নিরাপদ তা আর কেউ বুঝুক আর নাই বুঝুক আপনারা খুব ভাল করেই জানেন। তাই আপনাদের প্রতি আমার এবং আমাদের আওয়ামী পরিবারের সকল নেতা কর্মীর পক্ষ থেকে বিশেষ অনুরোধ থাকবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে চা শ্রমিকের প্রকৃত অবস্থা ব্যাখ্যা করে চা বাগান গুলোর সকল কার্যক্রম বন্ধ ঘোষনা করবেন এবং ভবিষ্যতে আবার আমরা নৌকা মার্কার পক্ষে বলিষ্ঠ কন্ঠে তাদের কাছে ভোট চাইতে পারি সেই সুযোগ করে দিবেন। পরিশেষে আপনাদের এবং বাংলাদেশের সকল মানুষের সুস্থতা কামনা করি।

এ বি এম আরিফুজ্জামান অপু

সাবেক সভাপতি

শমশেরনগর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ।

  •