ক্লাস্টার থেকে ছড়াচ্ছে কোভিড-১৯: ডা. ফ্লোরা

45

বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে তিনি জানান, নতুন যারা সংক্রমিত হয়েছেন তাদের ৬২ জন ঢাকায়, ১৩ জন নারায়ণগঞ্জে এবং বাকীরা দেশের বিভিন্ন স্থানের।

সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, “আমরা দেখেছি যত ২৪ ঘণ্টায় যত রোগী হয়েছেন তার বেশিরভাগই ঢাকায়। এরপরেই রয়েছে নারায়ণগঞ্জের। আমরা ইতিমধ্যে এটাও বলেছি যে নারায়ণগঞ্জকে আমাদের জন্য একটা হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত করেছি। নারায়ণগঞ্জের বিষয়ে বিশেষ পদক্ষেপ নিয়ে আমরা কাজ করছি। একেবারেই আলাদা করা হয়েছে।

“এখন বিভিন্ন জায়গা, বিভিন্ন জেলায় যেসব রোগী শনাক্ত হচ্ছে তারা ইতিপূর্বে আক্রান্ত এলাকা থেকে গেছেন। অনেক ক্ষেত্রেই আমরা দেখেছি আমরা আগে যেসব ক্লাস্টার চিহ্নিত করেছিলাম সেসব জায়গা থেকে গিয়েছেন, যেমন নারায়ণগঞ্জ। অনেকগুলো জেলাতেই যখন আমরা রোগ চিহ্নিত করছি তখন দেখছি যে তারা (আক্রান্তরা) নারায়ণগঞ্জ থেকে গেছেন।”

তিনি বলেন, এই মুহূর্তে সবার ঘরে থাকা কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা এই তথ্য থেকে বোঝা যায়।

“আমরা বারবার বলেছি, আমাদের সাধারণ ছুটিকে ছুটি হিসেবে নিলে হবে না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাদের জন্য ছুটি ঘোষণা করেছেন সবার ঘরে থাকা নিশ্চিত করতে। ঘরে থাকাটাই এই মুহূর্তে আমাদের সবচেয়ে বড় অংশগ্রহণ।”

ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ১১২ জন আক্রান্ত হয়েছেন নভেল করোনাভাইরাসে। তাদের ৭০ জন পুরুষ ৪২ জন নারী।

আক্রান্তদের মধ্যে ৩ জনের বয়স ১০ বছরের নিচে। ১১ খেকে ২০ বছরের ৯ জন, ২১ থেকে ৩০ বছরের ১৫ জন, ৩১ খেকে ৪০ বছরের ২৪ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের ১৭ জন, ৫১ খেকে ৬০ বছরের ২৩ জন। ৬০ বছরের বেশি বয়স এমন ১২ জন নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

  •