প্র‌তিবছর ৭০ হাজার কো‌টি টাকা পাচার হচ্ছে

14

সবুজ সিলেট ডেস্ক
সরকার আ‌র্থিক খাতকে চরম হুম‌কিতে ফেলেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. ফরাস উদ্দীন হিসেবে করে দেখিয়েছেন প্রতিবছর দেশ থেকে ৭০ হাজার কোটি টাকা পাচার হয়ে যাচ্ছে।

বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাম দলগুলোর এক সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন।

ব্যাংক সেক্টর এবং আর্থিক খাতে অরাজকতা ও নৈরাজ্যের প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সদর দফতর অভিমুখে বিক্ষোভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে এ সমাবেশের আয়োজন করে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি) ও বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ)।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ব্যাংক লুট, শেয়ার বাজারে লুটপাট-ডাকাতি ও আর্থিক খাতে অরাজকতার মধ্য দিয়ে এই টাকা পাচার করা হচ্ছে। অথচ সরকার লুটপাটকারীদের প্রশ্রয় দিচ্ছে। অর্থমন্ত্রী লুটপাটকারী‌দের বিরু‌দ্ধে কোনো কথা বলছেন না।

সরকার যাদের মন্ত্রী বানাতে পারেনি তাদের খুশি করতে একটি করে ব্যাংক উপঢৌকন দিচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তারা।

বামমোর্চার প্রধান সমন্বয়ক সাইফুল হক বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. ফরাস উদ্দীন হিসেব করে দেখিয়েছেন প্রতিবছর দেশ থেকে ৭০ হাজার কোটি টাকা পাচার হয়ে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, মহিউদ্দীন খান আলমগীরের পরিবার, ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম, অধ্যাপক মুনতাসির মামুন, পরিকল্পনামন্ত্রীর মেয়ে নাফিজা কামাল গংরা ব্যাংক লুট করেছেন। অথচ জনগণের করের টাকায় নাকি এই ব্যাংক চালু রাখতে হবে।

দুই দফায় শেয়ার বাজার লুট করা হয়েছে জানিয়ে সাইফুল হক বলেন, লুটপাটের সুবিধার জন্য ব্যাংকিং আইনে পরিবর্তন আনা হয়েছে। সরকার যাদের মন্ত্রী বানাতে পারেনি তাদের খুশি করতে একটি করে ব্যাংক উপঢৌকন দিচ্ছে।

বামনেতা রাজেকুজ্জামান রতন বলেন, দেশ আজ লুটপাটকারীদের হাতে। তারা আশ্রয়ে থেকে একর পর এক ব্যাংক লুট করছে। যারা ব্যাংক লুটের সঙ্গে জড়িতদের গ্রেফতার ও তাদের সমস্ত সম্পদ বাজেয়াপ্ত করার দাবি জানান তিনি।

বাম মোর্চার প্রধান সমন্বয়ক সাইফুল হকের সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বাম নেতা কাফি রতন, খা‌লেকুজ্জামান, রু‌হিন হোসেন প্রিন্স প্রমুখ।

সমাবেশ শেষে বাংলাদেশ ব্যাংক অভিমুখে বিক্ষোভ মিছিল করে বাম সংগঠনগুলো।

  •