মসজিদে সংখ্যার বাধ্যবাধকতা প্রত্যাহারের আহ্বান

19

মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে বিরাজমান সৃষ্ট পরিস্থিতিতে মসজিদে জামাতে নামায আদায়ের ব্যাপারে সরকার কর্তৃক বিধি-নিষেধের দাবি জানিয়েছে সিলেট বিভাগের সর্বপ্রাচীন মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড আযাদ দ্বীনী এদারায়ে তালিম বাংলাদেশ।

বৃহস্পতিবার (১৬ এপ্রিল) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে বোর্ডের সভাপতি আল্লামা শায়খ যিয়া উদ্দিন ও মহাসচিব আল্লামা শায়খ আব্দুল বছির বলেছেন, মসজিদে মুসল্লির সংখ্যা নির্ধারণ কার্যকরে দেশের অনেক স্থানে ইমাম ও মসজিদ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, যা অত্যন্ত দুঃখজনক।

দেশের হাট-বাজারে প্রতিনিয়ত লোকসমাগম পরিলক্ষিত হয়ে থাকে। বাজার ও সড়কে মানুষের চলাচল নিয়ন্ত্রণে না এনে মসজিদে মুসল্লির সংখ্যা নিয়ন্ত্রণ অযৌক্তিক।

এদারা শিক্ষাবোর্ডের নেতৃবৃন্দ সরকারকে পাঁচ ওয়াক্ত নামায, জুমআ এবং আসন্ন রামাদ্বানে তারাবীহর নামাযের জন্য পুরোপুরি উন্মুক্ত করে দেয়ার আহবান জানান।

এদিকে এদারা শিক্ষা বোর্ডের নেতৃবৃন্দ সকল প্রকার সতর্কতা অবলম্বন করে স্বাস্থ্যবিধিসহ সরকারি সকল নির্দেশনা মেনে সবাইকে আরও বেশি করে ইবাদতে মনোনিবেশ করারও আহবান জানান।

বিবৃতি দাতারা হলেন, সিনিয়র সহসভাপতি ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) মাওলানা শায়খ মুহিব্বুল হক গাছবাড়ী, সহ সভাপতি মাওলানা শায়খ শফিকুল আহাদ, সহকারি মহাসচিব হাফিয মাওলানা মুহিসন আহমদ, সহ পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাওলানা সৈয়দ আব্দুর রহমান, রচনা সম্পাদক হাফিয মাওলানা ফখরুয্ যামান মান, প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা এনামুল, জেলা নাযিম মাওলানা মুশতাক আহমদ খাঁন, মাওলানা আব্দুল গফ্ফার, মাওলানা আব্দুল বাসিত, মাওলানা আব্দুল আজিজ প্রমুখ।

  •