খোলামেলা হয়ে লকডাউন উপভোগ করছেন রাধিকা!

33

সবুজ সিলেট বিনোদন
খোলা আকাশের নীচে, সমুদ্রের বুকের ওপর সেই রকমই খোলামেলা রাধিকা আপ্তে। সমুদ্রে ঝাঁপ দেবেন বলে তৈরি হচ্ছেন। আর সেই ছবি তুলেই সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করে করেছেন তিনি। ক্যাপশনে রাধিকা বলেন, উপভোগ করছি লকডাউন! বিশ্বাস হচ্ছে না? ভাবছেন সবাই যখন করোনা আতঙ্কে ঘরবন্দি তখন কী করে সমুদ্রের ধারে ঘুরে বেড়াচ্ছেন!

অবশ্যই সমুদ্র বিহার সারছেন অভিনেত্রী। তবে পুরোটাই মনে মনে। সেই স্বপ্ন তিনি ছড়িয়ে দিয়েছেন অনুরাগীদের মনেও। তিনি ক্যাপশনে জোর দিয়ে বলেছেন, খুব শিগগিরি লকডাউন উঠলেই তিনি ছুট্টে চলে যাবেন সাগরের তীরে। আহার বুক ভরে নোনা জলের গন্ধ নেবেন। নিজেকে সঁপে দেবেন সাগরের নীল জলে। ছবি দিয়ে সবার মনে স্বপ্ন ছড়িয়ে দেওয়াকে তিনি “mind game” হিসেবে তুলে ধরেছেন। আর এজন্যই লন্ডনে বসে ভারতীয় এই নায়িকা ভাইরাল হলেন সামাজিক মাধ্যমে।

খোলা আকাশের নীচে খোলামেলা রাধিকা।

রাধিকা যখন লন্ডনে ফিরেছেন তখন ব্রিটেন করোনার গ্রাসে। সবাই তাঁকে নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলেন যথেষ্ট। আগের একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্টে শুভাকাঙ্ক্ষীদের তিনি লিখেছিলেন, যাওয়ার সময় যাত্রী ভর্তি বিমানেই উঠেছিলেন নিশ্চিন্তে। ব্রিটিশ রাজধানীতে কোনো কড়াকড়ি নেই। বিমানবন্দরে নেই ঢালাও পরীক্ষার ব্যবস্থা। বরং সবার সঙ্গে দম্পতি নাকি চুটিয়ে আড্ডা মারছেন। হর হামেশাই লন্ডন-ভারত যাতাযাত করেন অভিনেত্রী। অনেকেই রসিকতা করে বলেন, মান্থলি কেটে রেখেছেন রাধিকা। তাই দুই দেশের দুই শহরে তাঁর নিত্য আনাগোণা! আপাতত লন্ডনেই আছেন তিনি। আপাতত তিনি স্বামী বেনেডিক্ট টেলরের সঙ্গে রয়েছেন। বেনেডিক্ট লন্ডনের একজন জনপ্রিয় সুরকার।

রাধিকা আপ্তে লন্ডনে যাওয়ার পরেই তাঁকে দেখা গেছে মাস্ক মুখে একটি হাসপাতালে। সেই ছবি সোশ্যালে আসতেই তুমুল তোলপাড় শুরু হয়। কথা উঠে রাধিকার করোনা আক্রান্ত নিয়ে। রাধিকা জানান, করোনা হয়নি। অতিরিক্ত সাবধানতা অবলম্বনের জন্যই তিনি হাসপাতালে যাওয়া। কিন্তু সেল্ফ কোয়ারান্টাইনে রয়েছি।

সমুদ্রে পাড়ে বসে আছে রাধিকা।

বলিউড ও টলিউডে রাধিকা আপ্তে বাজার, অন্ধাধুন, প্যাডম্যান, কাবালি, পার্চড, দ্য ওয়েডিং গেস্ট এবং বদলাপুর এর মতো জনপ্রিয় ছবি করেছেন। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ছোট গল্প নিয়ে ওয়েব সিরিজ, সেক্রেড গেমস, গৌল-এও অভিনয় করেছেন তিনি।

  •