সৌদি আরবে অপ্রাপ্ত বয়স্কদের মৃত্যুদণ্ড বাতিল

18

সবুজ সিলেট ডেস্ক
অপ্রাপ্ত বয়স্কদের মৃত্যুদণ্ড বাতিল করেছে সৌদি আরব। বাদশাহ সালমানের জারি করা রাজ-ডিক্রির বরাত দিয়ে সেখানকার মানবাধিকার কমিশন (এইচআরসি) এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সৌদি আরবের সুপ্রিম কোর্টের জেনারেল কমিশনের সিদ্ধান্তে শাস্তি হিসেবে বেত্রাঘাত বাতিল করার ঠিক দুইদিন পরে রবিবার অপ্রাপ্তবয়স্ক অবস্থায় করা অপরাধে মৃত্যুদণ্ড বাতিলের ঘোষণা আসে।

যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান নিয়োগ পাওয়ার পর ঘোষিত সংস্কার কার্যক্রমের অংশ হিসেবে নারীদের গাড়ি চালানোর ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়ার পাশাপাশি মাঠে পুরুষের সঙ্গে বসে খেলা দেখা, সিনেমা দেখার ওপর নিষেধাজ্ঞা বাতিল করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে যাওয়া, চাকরিতে যোগদান, এমনকি অস্ত্রোপচার করার জন্যও আগে নারীদের পুরুষ অভিভাবকের অনুমতি নিতে হতো। সেই বিধিও রদ করা হয়। পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বাল্যবিবাহ ঠেকানোরও। সবশেষ দুই দিন আগে সুপ্রিম কোর্টের জেনারেল কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অপরাধের সাজা হিসেবে বেত্রাঘাতের পরিবর্তে জেল বা জরিমানার বিধান জারি করা হয়। এবার অপ্রাপ্ত বয়স্কদের সাজার বিধানে পরিবর্তন আনা হলো।

রবিবার (২৬ এপ্রিল) এইচআরসি সভাপতি আওওয়াদ আলাওয়াদ এক বিবৃতিতে বলেন, রাজ বিজ্ঞপ্তিটির অর্থ হলো-যে অপ্রাপ্তবয়স্ক অবস্থায় অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের জন্য মৃত্যুদণ্ড পেয়েছে, তাকে আর ওই দণ্ডের মুখোমুখি হতে হবে না। মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে তাকে অনধিক ১০ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হবে।তিনি বলেন, ‘এটি সৌদি আরবের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন। এটি আমাদের আরও আধুনিক বিচার ব্যবস্থায় প্রতিষ্ঠা করতে সহায়তা করবে এবং আমাদের দেশের প্রতিটি খাতের মূল সংস্কারের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়িত হবে।’ তবে এ সিদ্ধান্ত কবে কখন কার্যকর হবে, তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

অ্যামনেস্টি এক সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে দাবি করেছে, ২০১৯ সালে সৌদি আরব ১৮৪ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেছে, যাদের মধ্যে অন্তত একজন অপ্রাপ্তবয়স্ক থাকা অবস্থায় করা অপরাধের জন্য শাস্তি পেয়েছে।

  •