এন্টি টেররিজম ইউনিটের নতুন প্রধান কামরুল আহসান

24

সবুজ সিলেট ডেস্ক
জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদ দমনে গড়ে তোলা পুলিশের বিশেষায়িত শাখা এন্টি টেররিজম ইউনিটের (এটিইউ) প্রধান হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন অতিরিক্ত আইজিপি মো. কামরুল আহসান। তিনি সদ্য অবসরে যাওয়া অতিরিক্ত আইজিপি মো. আবুল কাশেমের স্থলাভিষিক্ত হলেন।

রবিবার (৩ মে) রাষ্ট্রপতির আদেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ পুলিশ-১ অধিশাখার উপসচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস সাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

এর আগে সিলেটে রেঞ্জের ডিআইজি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন কামরুল আহসান। তাকে পদোন্নতি দিয়ে নতুন এই দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

পুলিশের কার্যক্রমকে অধিকতর বেগবান করার জন্য ২০১৭ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর ‘এন্টি টেররিজম ইউনিট’ নামে নতুন একটি পুলিশ ইউনিট গঠন করা হয়। গতবছরের শেষে ‘অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট বিধিমালা-২০১৯’ প্রজ্ঞাপন আকারে প্রকাশ করে পুলিশ সদর দপ্তর। এই ইউনিটকে সারাদেশে সন্ত্রাসবাদ ও জঙ্গিবাদ সংক্রান্ত মামলার তদন্ত, আসামি গ্রেপ্তার, জিজ্ঞাসাবাদ, ব্যবহৃত অস্ত্র ও বিস্ফোরক উদ্ধার, জঙ্গি অর্থায়ন প্রতিরোধ, জঙ্গিবাদ ও উগ্রবাদী প্রচারণা প্রতিরোধসহ এ সংক্রান্ত সকল কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষমতা প্রদান করা হয়েছে। আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর ও গোয়েন্দা তথ্যভিত্তিক একটি স্বতন্ত্র ও স্বয়ংসম্পূর্ণ বিশেষায়িত ইউনিট হিসেবে কাজ শুরু করেছে সংস্থাটি।

নতুন দায়িত্ব পাওয়া অতিরিক্ত আইজিপি মো. কামরুল আহসান বলেন, সরকার যে নতুন দায়িত্ব দিয়েছে সেটা আন্তরিকতা এবং নিষ্ঠার সঙ্গে পালন করবো।’ এক্ষেত্রে সকলের সহযোগীতা চান তিনি।

কামরুল আহসান সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার ছিলেন। পরে দীর্ঘ তিনবছরের বেশি সময় সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি হিসেবে সুনামের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন। পুলিশের সবোচ্চ পদক বিপিএম (সেবা) পেয়েছেন দুইবার। এছাড়া দু’বার আইজি ব্যাজ অর্জন করেন।

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ইমামপুর গ্রামে ১৯৬৬ সালে জন্মগ্রহণ করেন কামরুল আহসান। ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক এবং সাউথ ইস্ট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবসায় প্রশাসন বিষয়ে (এমবিএ) স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। ১৯৯১ সালে বিসিএস (পুলিশ) ক্যাডারে যোগদান করেন। মৌলিক ও বাস্তব প্রশিক্ষণ শেষে খাগড়াছড়ি জেলার সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে পদায়িত হওয়ার পর চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী সার্কেল এএসপি, এএসপি ডিএসবি, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের এডিসি, ফেনী জেলার অ্যাডিশনাল এসপি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

এছাড়া শরিয়তপুর, চট্টগ্রাম ও যশোর জেলার পুলিশ সুপার, পুলিশ সদর দপ্তরের অ্যাডিশনাল ডিআইজি (সংস্থাপন) ও অ্যাডিশনাল ডিআইজি (ট্রেনিং) এবং রেলওয়ে রেঞ্জের ডিআইজি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তাছাড়া আন্তর্জাতিকভাবে স্বনামধন্য পুলিশ কর্মকর্তা মো. কামরুল আহসান জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী মিশনের ‘পুলিশ এডভাইজার’ হিসাবে সিয়েরালিওন ও সুদানে দায়িত্ব পালন করেন। সুদান মিশনের কনটিনজেন্ট কমান্ডার হিসেবে দায়িত্বপালনের গৌরবের পাশাপাশি তিনি মিশন সমূহে দৃষ্টান্তমূলক চাকরির স্বীকৃতিস্বরূপ ‘জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা পদক’ লাভ করেন।

  •