বেসরকারি মেডিক্যালের শিক্ষক-চিকিৎসকরা বেতন পাবেন, বোনাস নয়

7

সবুজ সিলেট ডেস্ক
বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের চিকিৎসক, শিক্ষকসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যকর্মীদের এপ্রিলের সম্পূর্ণ বেতন না দিয়ে ৬০ শতাংশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা হয়েছে। বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিক্যাল কলেজ অ্যাসোসিয়েশন (বিপিএমসিএ) এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের বিষয়টি জানিয়েছেন সংগঠনটির সভাপতি এমএ মুবিন খান। তবে তাদের এপ্রিল মাসের পুরো বেতন দেওয়া হলেও ঈদ বোনাস দেওয়া হবে না বলেও জানান তিনি।

হঠাৎ করে কেন সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা হলো জানতে চাইলে বাংলা ট্রিবিউনকে মুবিন খান বলেন, ‘রমজান মাসে মানবিক দিক বিবেচনা করে এ সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা হয়েছে।’

মানবিক দিক আগে কেন চিন্তা করা হয়নি, প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘করোনার প্রাদুর্ভাব চলছে, এটি একটি বৈশ্বিক দুর্যোগ, এখানে অস্তিত্বের বিষয়। কিন্তু যেহেতু আমরা একটি পরিবার; তাই মানবিক দিক বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করা হয়েছে।’

তাহলে কি সময়মতো বেতন-বোনাস সব পাচ্ছেন সবাই? জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘বোনাসের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি, বোনাস তো করা হয়নি। দেশের এই দুর্যোগপূর্ণ সময়ে যেখানে বেসরকারি সংগঠনগুলোর অস্তিত্বের ইস্যু, সেখানে বোনাস এখন কী করে হয়। বেতনের যে ৬০ শতাংশ নিয়ে সবার আপত্তি ছিল সেটিকে শতভাগ করে দেওয়া হয়েছে।’

এর আগে গত ২ মে বিপিএমসিএ’র নির্বাহী কমিটির জরুরি সভায় শনিবার (২ এপ্রিল সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে, বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের শিক্ষক, চিকিৎসক ও কর্মচারীদের ঈদুল ফিতরের বোনাস দেওয়া হবে না। একই সঙ্গে তাদের এপ্রিল মাসের বেতনও ৪০ শতাংশ কম দেওয়া হবে।

পরে সিদ্ধান্তগুলো জানিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বেসরকারি মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের চেয়ার‌ম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের কাছে চিঠি পাঠানো হয়। চিঠিতে সই আছে সংগঠনের সভাপতি এমএ মুবিন খান ও সাধারণ সম্পাদক ডা. মো এনামুর রহমানের। ডা. এনামুর রহমান ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবেও দায়িত্ব পালন করছেন।

এ নিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলে চিকিৎসকদের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়।

  •