হাওরের ৯০ ভাগ ও সারাদেশে ২৫ ভাগ ধান কাটা সম্পন্ন

7

সবুজ সিলেট ডেস্ক
হাওরের ৯০ ভাগ ও সারাদেশের ২৫ ভাগ বোরো ধান কাটা শেষ হয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক। মঙ্গলবার (৫ মে) সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের সঙ্গে অনলাইনে মতবিনিময়কালে তিনি এ কথা জানান। হাওরসহ সারা দেশের বোরো ধান কাটার অগ্রগতি এবং করোনা উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কৃষির চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় নেওয়া পদক্ষেপের বিষয়ে কথা বলেন মন্ত্রী।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী জুন মাসের মধ্যে সারা দেশের বোরো ধান শতভাগ কাটা সম্পন্ন হবে। এরইমধ্যে হাওরের ৯০ ভাগ ও সারাদেশের ২৫ ভাগ বোরো ধান কাটা শেষ হয়েছে। হাওরের অবশিষ্ট ১০ ভাগ এ সপ্তাহের মধ্যে কাটা শেষ হবে। হাওরভুক্ত এলাকাসমূহে অধিক জীবনকালসম্পন্ন ব্রি ধান ২৯ (জীবনকাল-১৬৫ দিন) ধানের আবাদ থাকায় ধান কাটা কিছুটা বিলম্বিত হচ্ছে।’

কৃষিমন্ত্রী জানান, হাওরভুক্ত সাত জেলায় (কিশোরগঞ্জ, নেত্রকোনা, সুনামগঞ্জ, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ, সিলেট, ব্রাহ্মণবাড়িয়া) শুধু হাওরের এ বছর বোরো আবাদের পরিমাণ চার লাখ ৪৫ হাজার ৩৯৯ হেক্টর জমিতে। এর মধ্যে সোমবার (৮ মে) পর্যন্ত মোট কাটা হয়েছে ৪ লাখ ৯৬৪ হেক্টর যা হাওরভুক্ত মোট আবাদের শতকরা ৯০ দশমিক ০২ শতাংশ। হাওরাঞ্চলে (হাওর ও অন্যান্য এলাকা মিলে) মোট বোরো আবাদের পরিমাণ ছিল ৯ লাখ ৩৬ হাজার ৩২০ হেক্টর জমিতে, এর মধ্যে এ পর্যন্ত মোট কাটার পরিমাণ ৬ লাখ ১১ হাজার ৮১৩ হেক্টর যা হাওরের জেলাগুলোয় মোট আবাদের শতকরা ৬৫ দশমিক ৩৪ ভাগ।

অন্যদিকে, সারা দেশে আবাদের পরিমাণ ৪৭ লাখ ৫৪ হাজার ৪৪৭ হেক্টর এর মধ্যে কাটা হয়েছে ১১ লাখ ৮৮ হাজার ৬১১ হেক্টর যা মোট আবাদের শতকরা ২৫ ভাগ।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে হাওরভুক্ত জেলাগুলোয় ধান কাটার জন্য প্রায় ৩ লাখ ৫০ হাজার ৫০০ জন কৃষি শ্রমিক নিয়োজিত আছেন। সফলভাবে নিরাপদে হাওর অঞ্চলের বোরা ধান দ্রুত কাটার জন্য উত্তরাঞ্চলসহ দেশের প্রায় চারটি কৃষি অঞ্চল থেকে কৃষি মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের ব্যবস্থাপনায় এবং সরকার ও বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার সহায়তায় প্রায় ৩৮ হাজার জন কৃষি শ্রমিককে হাওরে পাঠানো করা হয়েছে।

কৃষরা যাতে ধানের ন্যায্যমূল্য পায় সে ব্যবস্থাও নেওয়া হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, কৃষকের ধানের ন্যায্য মূল্য প্রাপ্তি এবং করোনা সময়কালে দেশের নিম্ন আয়ের মানুষের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকারের পক্ষ থেকে ৮ লাখ মেট্রিক টন ধান, ১ দশমিক ৫ লাখ টন আতপ চাল, ১০ লাখ মেট্রিক টন সেদ্ধ চাল এবং ৭৫ হাজার মেট্রিক টন গমসহ ২০ লাখ ২৫ হাজার মেট্রিক টন শস্য কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

অনলাইন ব্রিফিংয়ে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নাসিরুজ্জামান, অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) মো. আরিফুর রহমান অপু, অতিরিক্ত সচিব (গবেষণা) কমলারঞ্জন দাশ, অতিরিক্ত সচিব (সম্প্রসারণ) মো. হাসানুজ্জামান কল্লোল এবং কৃষি বিপণন অধিদফতরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফ প্রমুখ সংযুক্ত ছিলেন।