কিম নিজেই মৃত্যুর গুজব ছড়িয়েছিলেন

15

সবুজ সিলেট ডেস্ক
উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের কোনো ধরনের শারীরিক সমস্যা দেখা দেয়নি এবং তার শরীরে অস্ত্রোপচারেরও প্রয়োজন পড়েনি বলে জানিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। সম্প্রতি জনসমক্ষে কিমের অনুপস্থিতির জের ধরে তার সম্পর্কে ব্যাপক গুজব ছড়িয়ে পড়ার পরিপ্রেক্ষিতে সিউল একথা জানালো। খবর পার্সটুডে

এমনকি গত শনিবার (২মে) সব গুজবকে পেছনে ফেলে কিম জং-উন প্রকাশ্যে একটি সার কারখানা উদ্বোধন করার পরও তার স্বাস্থ্য নিয়ে গুজব অব্যাহত থাকে।

বার্তা সংস্থা এপি মঙ্গলবার (৫মে) জানিয়েছে, দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ ‘ব্লু হাউস’র নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কর্মকর্তা বলেছেন, সিউল এ ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছে যে, কিম জং-উন সাম্প্রতিক সময়ে কোনো স্বাস্থ্যগত সমস্যায় পড়েননি। অবশ্য এ সংক্রান্ত গোয়েন্দা সূত্র সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন।

এ পর্যন্ত উত্তর কোরিয়ার যেকোনো খবর সম্পর্কে দক্ষিণ কোরিয়ার গোয়েন্দা তথ্য সবচেয়ে নির্ভরশীল হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। সম্প্রতি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম যখন কিম জন-উন সম্পর্কে অসংখ্য গুজব ছড়াচ্ছিলো তখন দক্ষিণ কোরিয়া অবিচলভাবে সেসব প্রত্যাখ্যান করে বলে আসছিলো। উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতৃত্বে কোনো ধরনের অস্বাভাবিক তৎপরতা লক্ষ্য করা যায়নি।

কিম জং-উন গত মাসের মাঝামাঝি সময়ে তার পিতামহ এবং উত্তর কোরিয়ার প্রতিষ্ঠাতা কিম ইল-সং- এর জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে অনুপস্থিত থাকার পর তার সম্পর্কে গুজব ডালপালা মেলতে থাকে। তার হার্টে অস্ত্রোপাচার হওয়ার পর তিনি সংকটজনক অবস্থায় রয়েছেন বলে খবর প্রচারিত হয়। এমনকি তিনি মারা গেছেন বলে জানিয়ে অনেক গণমাধ্যম তার উত্তরসূরিও খোঁজা শুরু করে দেয়।

কোনো কোনো মিডিয়া জানায়, অত্যধিক মুটিয়ে যাওয়া এবং ধুমপান ত্যাগ না করার কারণেই কিম জং-উনের এই পরিণতি হয়েছে। কিন্তু এসব গুজব পেছনে ফেলে গত শনিবার কিম জং-উন প্রকাশ্যে রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে যোগ দেন। সোমবার খবর বের হয় যে, নিজের আশপাশের লোকদের বিশ্বস্ততা ও আনুগত্য যাচাই করার জন্য উত্তর কোরিয়ার নেতা নিজেই নিজের মৃত্যুর গুজব ছড়িয়েছিলেন।

  •