করোনায় আরও ৮ মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ৬৩৬

2

সবুজ সিলেট ডেস্ক
বাংলাদেশে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে প্রাণঘাতী ভাইরাস করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা। মৃতের সংখ্যাতেও যোগ হচ্ছে নতুন নতুন নাম। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আক্রান্তের তালিকায় যুক্ত হয়েছেন আরও ৬৩৬ জন। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ১৩ হাজার ৭৭০ জনে। একই সময়ে আটজনের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১৪ জনে। এছাড়া সুস্থ হয়েছেন ৩১৩জন।

শনিবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত বুলেটিনে যুক্ত হয়ে করোনাভাইরাস সর্বশেষ পরিস্থিতি তুলে ধরেন অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।

ব্রিফিংয়ের শুরুতে চলতি মৌসুমে ডেঙ্গু থেকে বাঁচতে সবাইকে ঘরবাড়ির আঙিনা পরিষ্কার রাখার পরামর্শ দেন তিনি। পানি যেন জমে না থাকে সে বিষয়ে বিশেষ সতর্ক করেন সবাইকে।

পরে দেশের কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে বিস্তারিত জানান নাসিমা সুলতানা। তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল পাঁচ হাজার ৫২৪৭ টি। পরীক্ষা করা হয়েছে ৫৪৬৫টি। আগের সংগ্রহ থেকেও পরীক্ষা করা হয়েছে। এর মধ্যে শনাক্ত হয়েছেন ৬৩৬ জন। সবমিলে মোট পরীক্ষা করা হয়েছে ১ লাখ ১৬ হাজার ৯১৯টি।

নাসিমা আরও জানান, ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৮জন। তার সকলেই পুরুষ। তারা বয়স বিবেচনায় ৭১-৮০ বছরের মধ্যে ২ জন, ৬১-৭০ বছরের মধ্যে ২জন, ৫১-৬০ বছরের মধ্যে ১জন, ৪১-৪০ বছরের মধ্যে ২ জন ও ৩১-৪০ বছরের মধ্যে ১জন।

এছাড়া, নতুন ৩১৩জন সুস্থসহ মোট ২৪১৪ জন সুস্থ হলেন জানিয়ে এ অধ্যাপক আরও বলেন, আমাদের শনাক্ত ঘটনার বিবেচনায় সুস্থতার হার.৯১.৮, মৃতের হার ৮.২ শতাংশ। আর শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১.৫ শতাংশ ও সুস্থ হওয়ার হার ১৭.৫ শতাংশ।

এ সময় বিভাগ ওয়ারি শনাক্তের সংখ্যা জানান তিনি। নাসিমা বলেন, এ পর্যন্ত ঢাকা সিটিসহ বিভাগে শনাক্ত হয়েছেন ৯ হাজার ১৭৭জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৫৭৬জন, সিলেট ১৬৩জন, ময়মনসিংহ বিভাগে ৪০০জন, বরিশাল বিভাগে ১৩০, রংপুর বিভাগে ২৬৩, রাজশাহী বিভাগে ১৫৩জন ও খুলনা বিভাগে ২১১ জন। তিনি আরও বলেন, বিভাগের জেলাগুলোর মধ্যে নারায়ণগঞ্জে সর্বাধিক আক্রান্ত আছেন।

চীনের উহান থেকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী ভাইরাস করোনা বাংলাদেশে প্রথম শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। সেদিন তিনজনের শরীরে করোনা শনাক্তের কথা জানিয়েছিল আইইডিসিআর।

এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ করোনায় প্রথম মৃত্যুর খবর আসে। দিন দিন করোনা রোগী শনাক্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়ায় নড়েচড়ে বসে সরকার।

ভাইরাসটি যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য ২৬ মার্চ থেকে বন্ধ ঘোষণা করা হয় সব সরকারি-বেসরকারি অফিস। কয়েক দফা বাড়ানো হয় সেই ছুটি, যা এখনও অব্যাহত আছে। ষষ্ঠ দফায় বাড়ানো ছুটি চলবে ১৬ মে পর্যন্ত।

করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার তথ্যানুযায়ী শনিবার সকাল পর্যন্ত করোনায় বিশ্বব্যাপী নিহতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে দুই লাখ ৭৬ হাজার ২১৬ জনে এবং আক্রান্তের সংখ্যা ৪০ লাখ ১২ হাজার ৮৪১ জন। অপরদিকে ১৩ লাখ ৮৫ হাজার ১৮৪ জন চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

  •