বানিয়াচংয়ে মেম্বার হত্যা: আটক দুই ভাই

8

বানিয়াচং প্রতিনিধি

হবিগঞ্জের বানিয়াচং উপজেলার ৯নং পুকড়া ইউনিয়নের মেম্বার অরুন দাস হত্যা মামলার সন্দেহভাজন আসামি হিসেবে দুই সহোদরকে আটক করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

সোমবার রাত সাড়ে ১১টায় পুকড়া গ্রাম এলাকা থেকে মৃত প্রমোদ রঞ্জণ দাসের পুত্র পবিত্র দাস (৪৫) ও প্রবোধ দাস (৪০) কে আটক করা হয়।

এর আগে এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার দায়ে এজাহারনামীয় আসামী একই গ্রামের মৃত ব্রজেন্দ্র সূত্রধরের ছেলে দীলিপ সূত্রধর (৩৫) ও মৃত প্রেমানন্দ সূত্রধরের ছেলে ইন্দ্র সূত্রধর (২৫) কে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের পর অজ্ঞাত কারণে ১নং আসামি দীলিপ সূত্রধরকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

৩নং আসামি ইন্দ্র সূত্রধরকে ২ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে উল্লেখযোগ্য কোনো তথ্য উদঘাটনে বানিয়াচং থানা পুলিশ ব্যর্থ হলে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) এর কাছে হস্তান্তর করা হয়।

পরে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) এর তদন্তের পর ওই এলাকার মৃত প্রমোদরঞ্জণ দাসের ছেলে পবিত্র দাস (৪৫) ও প্রবোধ দাস (৪০) কে আটক করা হয়।

পিবিআই পরিদর্শক মো. ফরিদুল ইসলাম সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, মামলার তদন্তের স্বার্থে দুজনকে আটক করা হয়েছে। হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। বিস্তারিত পরে জানা যাবে।

প্রসঙ্গত, গত ১০ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১২টার সময় পার্শ্ববর্তী কবিরপুরে ধর্মীয় উৎসবে যোগ দিতে পুকড়ার নিজ বাড়ি থেকে বের হন ইউপি সদস্য অরুন দাস। কিন্তু পরদিন ভোর বেলা পুকড়া গ্রামের পুকুর পাড়ের গাছ বাগানে বিবস্ত্র ও এক চোখ উপড়ানো অবস্থায় তার মৃতদেহ দেখতে পায় স্থানীয়রা। পরে বানিয়াচং থানায় খবর দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার ও সুরতহাল করে মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনার পরের দিন ১২ ফেব্রুয়ারি নিহতের ছেলে অয়ন দাস বাদী হয়ে বানিয়াচং থানায় ৪ জনের নামসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামি উল্লেখ করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

  •