করোনা মহামারিতে মিশিগানে ভিন্নধর্মী মানব সেবা দিচ্ছেন ডা. হোসেইন মোহাম্মদ

23

কামরুজ্জামান (হেলাল) যুক্তরাষ্ট্র:

শিশু স্বাস্থ্য সেবায় মিশিগানে ভিন্নধর্মী এক মানবিক চিকিৎসক হয়ে উঠেছেন ডা. হোসেইন মোহাম্মদ। করোনার মতো দুর্যোগময় পরিস্থিতিতে তিনি শিশুদের সেবার পাশাপাশি মানবিক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছেন। মানবিক এই সহায়তার মধ্যে করোনায় মৃতদের দাফনে আর্থিক সাহায্য, খাদ্য সহায়তা এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান। করোনার ভয়াল ছোবল থেকে মানুষকে বাঁচাতে লড়াই করে যাচ্ছের ডাক্তাররা। সাথে থাকছে নার্স/সেবক ও চিকিৎসা কর্মীরাও।

করোনা আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা করতে গিয়ে ডাক্তাররা একের পর এক আক্রান্ত হচ্ছেন, মারাও যাচ্ছেন। করোনা আতঙ্কে অনেকেই নিজ চেম্বার বন্ধ করে দিয়েছেন। যখন অদৃশ্য একটি শত্রুর বিরুদ্ধে লড়ছে সারাবিশ্বের মানুষ, তখন আমেরিকান-বাংলাদেশি চিকিৎসক ডা. হোসেইন মোহাম্মদ হ্যামট্রাম্যাক শহরে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চেম্বারে বসে শিশুদের স্বাস্থ্যসেবা দিয়ে যাচ্ছেন। পাশাপাশি করোনা পরিস্থিতি শুরুর থেকে এ পর্যন্ত মানবিক সহায়তা হিসেবে খাদ্য সহায়তা এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ অব্যাহত রেখেছেন। এই খাদ্য সহায়তা কর্মসূচিতে শুধু প্রবাসী বাংলাদেশি-ই নয়, আফ্রো-আমেরিকানসহ বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর অভিবাসীরা উপকৃত হচ্ছেন। এর অংশ হিসেবে আজ শুক্রবার (১৫ মে) ২শ আমেরিকান পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হবে। বিকাল সাড়ে ৪টা থেকে সাড়ে ৫টা পর্যন্ত ৯৬৩২, কনান্ট এভিনিউস্থ চিলড্রেন ক্লিনিক অব মিশিগানের পার্কিংলটে দেয়া হবে এসব সামগ্রী। তবে এসব সামগ্রী স্বাস্থ্য বিধি মেনে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে গ্রহণ করতে হবে। ডা. হোসেইন মোহাম্মদ বলেন, শিশুদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা এবং স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করাই আমার কাজ, আমি চাইলে নিজে ঘরে বন্দি থাকতে পারতাম, তবুও প্রতিনিয়ত বের হচ্ছি, রোগি দেখছি। শিশুরা সুস্থ থাকলেই আমি সুস্থ থাকি। আজকের শিশুরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ, এজন্য শিশুরাই আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ। তিনি আশা করেন শীঘ্রই আমরা এই সংকট কাটিয়ে উঠবো।

  •