দিরাইয়ের এলংজুরী গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা গোনেন্দ্র তালুকদারকে গার্ড অব অনার, রাষ্ট্রীয় মর্যাদায়

19

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ::
সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার চরনারচর ইউনিয়নের এলংজুরী গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা গোনেন্দ্র চন্দ্র তালুকদারের (৭০)মৃত্যুতে পুলিশের একটি চৌকুস দল তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল ১১টায় দিরাই উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারিহা সুলতানার নেতৃত্বে পুলিশের একটি ল এলংজুরী গ্রামে রনাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বগীয় গোনেন্দ্র চন্দ্র তালুকদারের বাড়িতে গিয়ে তার কফিনে শ্রদ্ধা নিবেদন এবং তাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গার্ড অব অনার প্রদানের পর তাকে এলংজুরী গ্রামের শশ্মানঘাটে সৎকার করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন স্বগীয় বীর মুক্তিযোদ্ধার ভাতিজা চরনারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রতন কুমার দাস তালুকদার দিরাই উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ আতাউর রহমান, ,মুক্তিযোদ্ধা বিধু ভূষন রায়,প্রভাত চন্দ্র দাস,সুনীল দাস,দিরাই থানা এস আই মোঃ আব্দুল আলীম,সতীশ দাসসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিকর্গরা উপস্থিতি ছিলেন। তিনি গত ২৭ জুলাই সোমবার সন্ধ্যায় বার্ধক্য জনিত কারণে নিজ বাড়িতে পরলোক গমণ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর। তিনি তিন ছেলে এক মেয়ে আত্মীয় স্বজন সহ অনেক গুনগ্রাহী রেখে জান।

দিরাই উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারিহা সুলতানা বলেন এই বীরসেনানীরা ১৯৭১ সালে দেশ মাতৃকার টানে অস্ত্র হাতে তুলে নিয়ে অনেক বীর মুক্তিযোদ্ধার আত্মবলিদানের মধ্যেই আজকের একটি স্বাধীন সার্বভৌমত্ব বাংলাদেশ আমরা পেয়েছি। জাতি এই বীর মুক্তিযোদ্ধা গোনেন্দ্র তালুকদারসহ সকল শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের আজীবন স্মরণ করবেন।
এ ব্যাপারে চরনারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রতন কুমার দাস তালুকদার বলেছেন,আমি নিজেকে গর্বিত মনে করি আমার চাচা(কাকু) ১৯৭১ সালে তারা অস্ত্র হাতে তুলে নিয়ে জীবন বাজি রেখে দেশকে স্বাধীন করেছেন। এই জাতি রনাঙ্গণের মুক্তিযোদ্ধাদের আজীবন শ্রদ্ধাভরে স্মরণ রাখবে। যতদিন বাংলাদেশ নামক মানচিত্রটি থাকবে জাতি ততোদিন এই বীরদের সম্মান জানাবে।

  •