ছাতকের বুরাইয়া বাজারে চলছে অবৈধ পশুর হাট

18

ছাতক প্রতিনিধি ::
ছাতকের দোলারবাজার ইউনিয়নের বুরাইয়া বাজারে বসেছে গরু-ছাগলের অবৈধ হাট। কোরবানীর ঈদ উপলক্ষে অবৈধভাবে গড়ে উঠা এ পশুর হাট নিয়ন্ত্রন করছে স্থানীয় কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তি। স্থানীয় একটি মাদ্রাসার দোহাই দিয়ে তারা পশুর অবৈধ হাট বসিয়ে দেদারছে পশু-কেনা-বেচার টুল আদায় করছে। এখানে বাজার ইজারা গ্রহিতার অংশিদারিত্ব রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ফলে আশপাশের বৈধ পশুর হাটে এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ার আশংকা রয়েছে।

উচ্চ মুল্যে ইজারা গ্রহনকরা উপজেলার জাউয়াবাজার, দোলারবাজার, রসূলগঞ্জ বাজারসহ অন্যান্য পশুর হাট ইজারা গ্রহনকারী ব্যবসায়ীরা অবৈধ পশুর হাটের জন্য ক্ষতিগ্যস্থ হবেন। এভাবে গরু-ছাগলের অবৈধ হাট বসলে আগামীতে বৈধ ইজারা গ্রহীতাগন ইজারা গ্রহনে অনেকটা অনিহা প্রকাশ করতে পারে বলে অনেকেই মন্তব্য করেছেন। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বছর ইজারা গ্রহনের মাধ্যমে বুরাইয়া বাজারে কোরবানীর বৈধ পশুর হাট বসেছিল। সম্প্রতি ঘন ঘন বন্যা ও করোনা ভাইরাসের কারনে সরকারিভাবে এখানে পশুর হাট বসানোর কোন অনুমোদন দেয়া হয়নি।

কিন্তু সরকারিভাবে কোন অনুমোদন না থাকলেও এখানে পশুর অবৈধ হাট বসিয়ে চালানো হচ্ছে পশু কেনা-বেচা। প্রায় এক সপ্তাহ আগে এখানে এ হাটটি বসানো হয়েছে বলে স্থানীয়রা জানান। জেলা প্রশাসকের অনুমতি সাপেক্ষে এ উপজেলায় নতুন করে ৪টি স্থানে পশুর হাট বসানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। উন্মুক্ত টেন্ডারের মাধ্যমে উপজেলার কালারুকা ইউনিয়নের হাসনাবাদ বাজারে, নোয়ারাই ইউনিয়নের চৌমুহনী বাজারে, ইসলামপুর ইউনিয়নের ইসলাম বাজারে ও ছৈলা- আফজলাবাদ ইউনিয়নের সোনালী বাংলাবাজারে পশুর হাট বসানোর অনুমোদন দেয়া হয়।

গত ২৩ জুলাই কোরবানীর ঈদকে কেন্দ্র করে উপজেলার সিংচাপইড় ইউনিয়নের সিরাজগঞ্জ বাজারে গড়ে উঠা গরু-ছাগলের অবৈধ হাট উচ্ছেদ কওে স্থানীয় প্রশাসন। বাজার পরিচালনা কমিটির নেতৃত্বে বিনা ইজারায় বসানো গরু-ছাগলের অবৈধ হাট উচ্ছেদ করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ গোলাম কবির। স্থানীয় সচেতন মানুষ বুরাইয়া বাজরের পশুর অবৈধ হাটটি উচ্ছেদ করার দাবী তুলেছেন। সহকারী কমিশনার(ভুমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তাপস শীল এ ব্যাপারে জানান, বুরাইয়া বাজারে পশুর হাট বসানোর সরকারি কোন অনুমতি নেই। হাটটি উচ্ছেদে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।