স্বামীর অতিরিক্ত ভালোবাসায় অতিষ্ঠ স্ত্রী চাইলেন বিচ্ছেদ

27

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ::
কথায় আছে-অতিরিক্ত কোনো কিছুই ভালো নয়। তবে এটা যে ভালোবাসার ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য তা প্রমাণ করলেন ভারতের এক নারী। তার সবকিছুই স্বামী মুখ বুজে সহ্য করেন বলে চটেছেন। এখন স্বামীকে ডিভোর্স দিতে চান তিনি।

ভারতের উত্তর প্রদেশের এই নারীর অভিযোগ, অতিরিক্ত ভালোবাসায় তার দমবন্ধ হয়ে যাচ্ছে। আর তাই আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি। কিন্তু আদালত তার আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন। তারপরও নাছোড়বান্দা ওই নারী। এখন পঞ্চায়েতের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি।

ভারতীয় একটি সংবাদমাধ্যম বলছে, উত্তর প্রদেশের সম্বল জেলার ওই নারীর বিয়ে হয়েছে দেড় বছর আগে। এর মধ্যেই বিচ্ছেদ চাচ্ছেন তিনি। মামলার আরজিতে তিনি বলেছেন, স্বামীর অতিরিক্ত ভালোবাসা এবং ভালো মানুষির ঠ্যালায় তিনি বিরক্ত। তাই বিচ্ছেদ চান।

তবে শরিয়াহ আদালত তার পিটিশন খারিজ করে দিয়েছেন। আদালত বলেছেন, তিনি অবুঝের মতো আচরণ করছেন। তারপরও হাল ছাড়তে রাজি নন তিনি। হাজির হয়েছেন পঞ্চায়েতের দরবারে। তবে পঞ্চায়েতের তরফেও জানানো হয়েছে, এমন উদ্ভট সমস্যা সমাধান করতে তারাও অপারগ।

তবে নাছোড়বান্দা ওই নারী ঠিক করে নিয়েছেন স্বামীকে ডিভোর্স দিয়েই ছাড়বেন। এ বিষয়ে তার ভাষ্য, ‘উনি আমায় অতিরিক্ত ভালোবাসেন। কখনো ঝগড়া করেন না। আমি ভুল করলেও সবসময় হাসিমুখে ক্ষমা করে দেন। আমি এমন জীবন চাই না। মাঝে মাঝে তর্ক-বিতর্ক করতে চাই। এই অতিরিক্ত ভালোবাসায় দমবন্ধ লাগে আমার। তাই বিচ্ছেদ চেয়েছি।’

আর মহিলার স্বামী বলছেন, তিনি সবসময় স্ত্রীকে খুশি রাখতে চান। তাই এমন ব্যবহার করেন তিনি। শরিয়া আদালত যাতে তার স্ত্রীর পিটিশন খারিজ করে দেন সেজন্য আবেদন জানিয়েছেন ওই ব্যক্তি। অন্যদিকে পঞ্চায়েতের তরফেও স্বামী-স্ত্রীকে বলা হয়েছে, তারা যেন নিজেদের মধ্যে ব্যাপারটা মিটিয়ে নেন। কিন্তু ওই মহিলা কিছুতেই বিষয়টি মিটিয়ে নিতে রাজি নন।

  •