সিলেটপ্রস্তাবিত ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্কের কাজ দ্রুত বাস্তবায়নের দাবী : চেম্বার সভাপতি এটিএম শোয়েব

8

শিল্প খাতে অত্যন্ত সম্ভাবনাময় সিলেটে প্রস্তাবিত ১০০ একর জায়গা নিয়ে মালটি সেক্টরাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক স্থাপনের কাজ দ্রুত বাস্তবায়নের জন্য শিল্প মন্ত্রণালয়ে পত্র প্রেরণ করেছেন দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি। সিলেট চেম্বার সভাপতি আবু তাহের শোয়েব স্বাক্ষরিত পত্রে উল্লেখ করেন, সিলেটের খাদিমনগর ও গোটাটিকরে দুইটি বিসিক শিল্প নগরী রয়েছে। উক্ত দুইটি শিল্প নগরীতে দীর্ঘদিন যাবৎ কোন প্লট খালি নেই। কালের বিবর্তনে আশপাশের এলাকা ভরাট হয়ে যাওয়ায় বিসিক শিল্প নগরীতে বৃষ্টির সময় জলাবদ্ধতা লেগেই থাকে।

শিল্পনগরীর রাস্তা ও পয়:নিষ্কাষনের যুগোপযোগি অবকাঠামো তৈরীর কোন পরিকল্পনা এখনও গ্রহণ করা হয়নি। যার ফলে নতুন উদ্যোক্তা ও প্রবাসী উদ্যোক্তাগণ সিলেটে নতুন শিল্প প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলতে পারছে না। এতে শিল্পায়নে সিলেট পিছিয়ে পড়েছে।

চেম্বারের পত্রে আরও উল্লেখ করা হয়, সিলেট প্রবাসী অধ্যূষিত অঞ্চল। বর্তমানে অনেক প্রবাসী সিলেটে বিনিয়োগে আগ্রহী। সিলেট-লন্ডন-ম্যানচেস্টার সরাসরি ফ্লাইট চালু, যা রপ্তানীর ক্ষেত্রে এক অপার সম্ভাবনা। তাছাড়া ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় সাতটি রাজ্যে বাংলাদেশী পণ্যের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে এবং ভৌগলিক সুবিধার কারণে সিলেট থেকে এসব রাজ্যে পণ্য রপ্তানী অত্যন্ত সুবিধাজনক। তাই সিলেটে নতুন নতুন শিল্প প্রতিষ্ঠান স্থাপিত হলে আমদানী নির্ভরতা কমিয়ে স্থানীয় চাহিদা পূরণ করে এখান থেকে পণ্য বিদেশেও রপ্তানী করা যাবে।

এজন্য সিলেটে প্রস্তাবিত মাল্টি সেক্টরাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক স্থাপন এখন সময়ের দাবী। সর্বোপরী ১০০ একর জমি নিয়ে প্রস্তাবিত নতুন মাল্টি সেক্টরাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক স্থাপনের জন্য দি সিলেট চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি ও সিলেটের ব্যবসায়ী মহলের পক্ষ থেকে জোর দাবী সহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানানো হয়েছে।

সিলেট এই ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক হলে দেশি-বিদেশী বিনিয়োগের পাশাপাশি সরকারের রাজস্বও বৃদ্ধি পাবে। ১০০ একর নিয়ে সিলেট প্রস্তাবিত মাল্টি সেক্টরাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক স্থাপনের জন্য যে পরিকল্পনা হাতে নেয়া হচ্ছে মুজিব বর্ষে তার কাক্ষিত পরিফলন দেখতে পাবেন বলে সিলেট চেম্বারের নেতৃবৃন্দ মনে করেন । বিজ্ঞপ্তি :-

  •