বিয়ানীবাজারে তিন বছরেও শেষ হয়নি আনোয়ার হত্যার তদন্ত

5

বিয়ানীবাজার প্রতিনিধি ::
বিয়ানীবাজারে তিন বছরেও শেষ হয়নি আনোয়ার হোসেন (২১) হত্যার তদন্ত কার্যক্রম। প্রধান আসামী সায়েল আহমদ (২০) গ্রেফতার না হওয়ায় এ মামলার তদন্ত কার্যক্রম আটকে আছে বলে জানা গেছে। নিহত ব্যক্তি সুপাতলা গ্রামের সিরাজ উদ্দিনের ছেলে।
২০১৭সালের ২৫নভেম্বর আনোয়ার হোসেনকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়। প্রকাশ্যে দিনদুপুরে বিয়ানীবাজার পৌরশহরের দক্ষিণ বাজারস্থ খাসাড়িপাড়া রাস্থায় পূর্ব বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। ঘটনা পরবর্তী সময়ে নিহতের পক্ষে এলাকার লোকজন পৌরশহরে ব্যাপক বিক্ষোভ করেন। এদিকে আনোয়ার হোসেন হত্যায় জড়িত মর্মে নিহতের ভাই দেলোয়ার হোসেন ১১জনের নাম উল্লেখ করে বিয়ানীবাজার থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় পলাতক সায়েল আহমদকে প্রধান আসামী করা হয়। এরপর থেকে সে পলাতক রয়েছে। সূত্র জানায়, প্রধান আসামী দেশের বাইরে আত্মগোপনে আছে।
মামলার বাদী দেলোয়ার হোসেন জানান, দীর্ঘদিনেও পুলিশ আমার ভাই হত্যাকান্ডের অভিযোগপত্র আদালতে প্রদান করেনি। এ কারণে মামলার বিচারকার্য শুরু করা যাচ্ছেনা। আমি অনেকবার যোগাযোগ করলেও শুধু সময়ক্ষেপন করা হচ্ছে। অপরদিকে আসামী সামসুদ্দিন জানান, আমরাও চাই মামলায় অভিযোগপত্র দেয়া হোক। কারণ বিনাদোষে আমরা দিনের পর দিন কারাভোগের পর আদালতে হাজিরা দিচ্ছি।

বিয়ানীবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) অবণী শংকর কর বলেন, মামলার তদন্ত কার্যক্রম শেষ পর্যায়ে। প্রধান আসামীকে গ্রেফতার করা সম্ভব না হলেও অপর আসামীরা কারাভোগ শেষে জামিনে আছেন। তিনি জানান, নিহত আনোয়ার হোসেনের ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া গেছে। একটিমাত্র ছুরিকাঘাতে তার মৃত্যু হয় বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

  •