ব্যবসায়ীদের ৩ কোটি টাকা পর্যন্ত সহায়তা দেবে অস্ট্রেলিয়া

3

সবুজ সিলেট ডেস্ক ::
কৃষি ও ব্যাংকিংসহ বিভিন্ন খাতের ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগসহ নারী উদ্যোক্তাদের ব্যবসায়িক অংশিদারিত্বের ভিত্তিতে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ঢাকার অস্ট্রেলীয় হাইকমিশন। সফল ব্যবসায়িক উদ্যোগগুলোতে ৫ লাখ অস্ট্রেলিয়ান ডলার (১ অস্ট্রেলিয়ান ডলার ৬১ টাকা ৯০ পয়সা হিসাবে তিন কোটি ৯ লাখ ৫০ হাজার টাকা) পর্যন্ত তহবিল সরবরাহ করা হবে এই উদ্যোগে। বিজনেস পার্টনারশিপ প্ল্যাটফর্ম (বিপিপি) উদ্যোগের অধীনে ব্যবসায়িক অংশিদারিত্বের ভিত্তিতে সহায়তা করার ঢাকার অস্ট্রেলীয় হাইকমিশন এই ঘোষণা দিয়েছে।

ঢাকার অস্ট্রেলীয় হাইকমিশন সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) এক বার্তায় জানিয়েছে, ঢাকায় নিযুক্ত অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনার জেরেমি ব্রুয়ার বাংলাদেশের অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে সহায়তার অংশ হিসেবে বিপিপি উদ্যোগের অধীনে প্রস্তাবনা গ্রহণ করার ঘোষণা দিয়েছেন।

সহযোগিতা প্রস্তাবের আওতায় যেসব খাতের কথা বলা হয়েছে সেগুলো হলো— কৃষি ও কৃষি প্রযুক্তি, ব্যাংকিং/অর্থনৈতিক অন্তর্ভুক্তি, ক্লিন এনার্জি এবং শক্তি দক্ষতা, বস্ত্র ও উৎপাদনসহ ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগ, নারীদের অর্থনৈতিক সুযোগ-সুবিধা অথবা গ্রিন রিকভারিতে অবদান রাখে— এমন প্রতিষ্ঠান।

বিপিপি প্রকল্প অস্ট্রেলিয়ান সরকারের অনবদ্য একটি উদ্যোগ। এর মাধ্যমে ব্যবসায়িক অংশিদারিত্বের ভিত্তিতে সহায়তা দেওয়া হয়, যার মাধ্যমে বাণিজ্যিকভাবে লাভবান হওয়ার পাশাপাশি টেকসই অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি এবং দারিদ্র বিমোচন করা সম্ভব হয়।

অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনার জেরেমি ব্রুয়ার বলেন, ‘করোনাভাইরের প্রভাব মোচন করতে ব্যবসা ও ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানগুলো গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে। বাংলাদেশে অস্ট্রেলিয়ান সরকারের সঙ্গে এই ব্যবসায়িক অংশীদারিত্ব স্থানীয় জীবিকা নির্বাহের সুযোগ তৈরি, লিঙ্গ সমতা বৃদ্ধি এবং একটি স্থিতিশীল অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে সহায়তা করবে।’

বিপিপি করোনাভাইরাস থেকে অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে ডিজিটালাইজেশন এবং তথ্যপ্রযুক্তি, শ্রমিকদের দক্ষতা বৃদ্ধি, ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগ, মহিলাদের অর্থনৈতিক সুযোগ-সুবিধা অথবা গ্রিন রিকভারিতে অবদান রাখে— এমন প্রতিষ্ঠানদের সঙ্গে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে অর্থায়ন করতে পারে।

ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো একক বা যৌথভাবে অংশিদারিত্বের জন্য আবেদন করতে পারবে। অস্ট্রেলিয়ান সরকার সফল ব্যবসায়িক উদ্যোগগুলোতে ৫ লাখ অস্ট্রেলিয়ান ডলার পর্যন্ত তহবিল সরবরাহ করবে।

বিপিপি প্রস্তাবনার বিস্তারিত জানা যাবে www.thebpp.com.au সাইট থেকে। যেসব ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান তাদের বাণিজ্যিক প্রস্তাবনার মাধ্যমে দীর্ঘস্থায়ী সামাজিক প্রভাব রাখতে সক্ষম, তারা বিপিপি’র সহায়তা প্রস্তাবের অন্তর্ভুক্ত হতে ৪ নভেম্বর পর্যন্ত আবেদন করতে পারবে।

এ বিষয়ে তথ্য সেশনে অংশ নিতে চাইলে অনলাইনে রেজিস্টার করতে হবে https://bit.ly/2Rmn1hI লিংকে। আরও জানতে যোগাযোগ করুন: ঢাকা, বাংলাদেশ: অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশন বাংলাদেশ, ইমেইল: ahc.dhaka@dfat.gov.au। অথবা ক্যানবেরা, অস্ট্রেলিয়া: ক্যারোলিন রবার্টস, যোগাযোগ ব্যবস্থাপক, বিপিপি corinne.roberts@thebpp.com.au।