একটি গর্তের কারণে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে চরম দুর্ভোগ

2

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ::
সুনামগঞ্জের ছাতকে গোবিন্দগঞ্জ ট্রাফিক পয়েন্টে একটি বড় গর্তে একটি মালবাহী ট্রাক দেবে গিয়ে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে ৫ ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ ছিল। এতে দুপাশে প্রায় ১০ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। চরম দুর্ভোগে পড়েন দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস, মালবাহী অসংখ্য ট্রাক ও রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) ভোর ৪টা থেকে ৮টায় সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে ছাতক উপজেলাধীন গোবিন্দগঞ্জ ট্রাফিক পয়েন্ট এলাকায় বড় একটি সৃষ্ট গর্তে সুনামগঞ্জগামী একটি মালবাহী ট্রাক অতিক্রম করার সময় দেবে যায়। গর্তের মিনি পুকুরে দেবে যাওয়া বালু ভর্তি দুটি ট্রাকবোঝাই ছিল।

এরপর সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সড়কের দুপাশে আটকা পড়ে দূরপাল্লার যাত্রীবাহী বাস, মালবাহী অসংখ্য ট্রাক ও রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্সসহ বিভিন্ন যানবাহন। প্রায় ১০ কিলোমিটার সড়কে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয় মাত্র একটি গর্তের কারণে। খবর পেয়ে গোবিন্দগঞ্জ ট্রাফিক পুলিশের এসআই নুর আলমের নেতৃতে একদল পুলিশ এবং হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ আমির উদ্দিন ঘটনাস্থলে পৌঁছে যানজট নিরসনে কাজ শুরু করেন।

পরে হাইওয়ে পুলিশের ইনচার্জ আমির উদ্দিন সিলেট থেকে রেক্রার এনে দেবে যাওয়া ট্রাকগুলো অপসারণ করা হলে সকাল ৯টায় সড়ক যানজট মুক্ত হয়।

এ ব্যাপারে গোবিন্দগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আখলাকুর সড়কের উন্নয়ন কাজের নামে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের চরম গাফিলতিকে দায়ী করেন।

তিনি বলেন, ‘নিয়ম-নীতি তোয়াক্কা না করে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে ধীর গতিতে সড়কের আরসিসিসহ উন্নয়ন কাজ করছে। গোবিন্দগঞ্জ পয়েন্টে সৃষ্ট গর্তে যান চলাচলের অনুপযোগী সড়কের কিছু অংশের এমন দশার কারণে দুর্ঘটনাসহ গুরুত্বপূর্ণ সড়কটিতে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।’

তিনি এ গর্তসহ সড়কের যাবতীয় কাজ টেকসই করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নজরদারি বাড়ানোর জোর দাবি জানান।