গোল করার নেশা কমে গেছে মেসির

10

খেলা ডেস্ক::
এতদিন গোল করার দিকেই সব মনোযোগ ছিল লিওনেল মেসির। তবে এখন তার সব মনোযোগ গোল করানোর দিকেই। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে নিজের চেয়ে দলের সাফল্যই তার কাছে অধিক গুরুত্ব পাচ্ছে। এক সাক্ষাৎকারে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড নিজেই একথা জানিয়েছেন।

বার্সেলোনার ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলদাতার তকমা অনেক আগেই নিজের দখলে নিয়েছেন মেসি। কাতালান জায়ান্টদের জার্সিতে ৭৩৪ ম্যাচে ৬৩৫ গোল তার। এছাড়া ১৬ বছরের ক্লাব ক্যারিয়ারে ২৫৬টি অ্যাসিস্টও আছে তার নামের পাশে।

তবে সাম্প্রতিক সময়ে নিজে গোল করার চেয়ে সতীর্থদের দিয়ে গোল করানোয় বেশি মনোযোগী হতে দেখা গেছে মেসিকে। গত মৌসুমে সতীর্থদের দিয়ে ২১ গোল করিয়ে এমনকি লা লিগার ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি অ্যাসিস্টের রেকর্ডও গড়েছেন তিনি।

আর্জেন্টিনার মাসিক সাময়িকী ‘গারগান্তা পোদেরসা’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নিজের নতুন ভূমিকা নিয়ে কথা বলেছেন মেসি। তিনি বলেন, ‘এখন আমার গোল করার নেশা কমেছে। এখন আমি দলের জন্য আরও বেশি অবদান রাখার চেষ্টা করি। ‘

করোনা মহামারি পরিস্থিতিতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছেন মেসি। নিজ দেশ আর্জেন্টিনা ও বর্তমান ঠিকানা বার্সেলোনায় করোনাযুদ্ধের জন্য বড় অংকের আর্থিক সহায়তা দিয়েছেন তিনি। তার দান করা ১ মিলিয়ন ইউরোয় বার্সেলোনা ও আর্জেন্টিনার হাসপাতালগুলোয় চিকিৎসা সরঞ্জাম কেনা হয়েছে।

মেসির মতে, ‘বৈষম্য হচ্ছে সবচেয়ে বড় সমস্যা। বৈষম্য নিরসনে সবার একসঙ্গে কাজ করা উচিত। ‘ তিনি বিশ্বাস করেন, এই করোনাকালে পানি, বিদ্যুৎ এবং পর্যাপ্ত খাবার নিশ্চিত করতে হবে। তার মতো আরও যারা আর্জেন্টিনায় অসহায় মানুষদের সহায়তায় এগিয়ে আসছেন তাদের প্রশংসা করতেও কার্পণ্য করেননি তিনি।

এই মৌসুমে জেতা শিরোপাগুলো করোনাযোদ্ধাদের প্রতি উৎসর্গ করতে চান মেসি, ‘এ বছর জেতা সব শিরোপাগুলো করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সঙ্গে জড়িতদের প্রতি উৎসর্গ করা উচিত। ‘

সাক্ষাৎকারের এক পর্যায়ে প্রথমবারের মতো ফুটবলে পা রাখার স্মৃতিও স্মরণ করেন। ২০০০ সালে বার্সেলোনার অ্যাকাডেমিতে যাওয়ার আগে আর্জেন্টিনার নিওয়েলস ওল্ড বয়েজের হয়ে খেলতেন তিনি। এরপর কাতালুনিয়ায় গিয়ে ক্রমেই নিজেকে ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড়ে পরিণত করেন এই ‘খুদে জাদুকর’।

সবুজ সিলেট /১৬ অক্টোবর/ শামছুন নাহার রিমু