ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে ভিক্ষুককে হত্যা, ২ আসামির স্বীকারোক্তি

5

সবুজ সিলেট ডেস্ক :: বগুড়ার ধুনটে হাসিলা খাতুন নামের এক ভিক্ষুককে ধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। এ অভিযোগে উপজেলার কালেরপাড়া ইউনিয়নের আনারপুর কচুগাড়ি গ্রামের সামছুল মন্ডলের ছেলে বাদশা আলম (২৮) ও আনারপুর হঠাৎপাড়া গ্রামের বাদু মন্ডলের ছেলে ফজলুল হককে (৩২) আটক করেছে পুলিশ। আসামিরা পেশায় সিএনজিচালিত অটোরিকশা চালক।

হাসিলা বেগম উপজেলার কালেরপাড়া ইউনিয়নের ঘুগরাপাড়া গ্রামের শুকুর আলী মন্ডলের মেয়ে। সে দীর্ঘদিন ভিক্ষাবৃত্তি করে জীবিকা নির্বাহ করতো।

নিহতের পরিবারের বরাতে ধুনট থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) আকবর আলী জানান, গত ১৩ অক্টোবর সকালে বাড়ির পাশে ধানক্ষেতের পাশে একটি পতিত জমি থেকে ভিক্ষুক হাসিলা খাতুনের গলায় ওড়না দিয়ে ফাঁস লাগানো অবস্থায় লাশ উদ্ধার করা হয়। আগের দিন ১২ অক্টোবর সন্ধ্যায় ভিক্ষাবৃত্তি শেষে পাশের আনারপুর গ্রামে বোনের বাড়ি যান তিনি। রাতে বাড়ি ফেরার পথে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ হত্যার ঘটনায় হাসিলার বোন ধলি বেগম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে ১৩ অক্টোবর রাতে থানায় হত্যা মামলা করেন।

এসআই আকবর বলেন, নিহত হাসিলা বেগমের মোবাইল ফোনের কললিস্টের সূত্র ধরে ১৬ অক্টোবর রাতে তাদের নিজ নিজ বাড়ি থেকে বাদশা আলম ও ফজলুল হককে আটক করা হয়। পরে হাসিলার বোনের করা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে বাদশা আলম ও ফজলুল হককে আদালতে হাজির করা হলে ১৬৪ ধারায় ভিক্ষুক হাসিলা খাতুনকে ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে হত্যা করেছে বলে স্বীকার করে তারা।

ধুনট থানার পরিদর্শক (তদন্ত ) কামরুজ্জামান মিঞা বলেন, গ্রেপ্তারকৃত দুই আসামি বাদশা আলম ও ফজলুল হক ভিক্ষুক হাসিলাকে ধর্ষণ চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে হত্যার দায় স্বীকার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।