দিরাইয়ে ডুবা থেকে শিশুর লাশ উদ্ধার, মৃত্যু নিয়ে রহস্য

21

সবুজ সিলেট ডেস্ক :: সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার রাজা নগর ইউনিয়নে ডুবার পানিতে থেকে ৭ বছরের এক শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার (১৯ অক্টোবর) ২য় শ্রেণিতে পড়া দুর্জয়কে না পেয়ে পরিবারের লোকজন তাকে খোঁজাখুঁজি করতে গিয়ে একটা সময় বাড়ির রাস্তার পাশে থাকা একটি ডোবাতে গিয়ে অচেতন অবস্থায় পান। পরে দিরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। পরবর্তীতে শিশুটিকে বাড়িতে নিয়ে আসলে নিহত দুর্জয়ের গায়ে আঘাতে চিহ্ন দেখে পরিবারের লোকজনের সন্দেহ হয়। যার প্রেক্ষিতে লাশ নিয়ে স্বজনরা থানায় আসে। নিহত দুর্জয়ের দুই কানের পাশে ও গালে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়। এতে পুলিশের সন্দেহ হয়। মৃত শিশুটি চন্দ্রকান্ত সরকারের ছেলে।

এ ঘটনায় মৃত শিশুর স্বজনসহ গ্রামের মানুষের দাবী , আপত্তিকর জায়গাটিতে ডোবাটিই কাল হলো শিশু দুর্জয়ের। এনিয়ে এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে স্থানীয়দের সাথে আলাপ করলে জানা যায়, গত কিছুদিন আগে গ্রামের রাস্তার পাশে ডোবা তৈরি করেন গ্রামের স্বাধীন সরকার । এ সময় গ্রামবাসীরা তাকে গিয়ে বলেন, রাস্তা দিয়ে গ্রামের শিশুরাসহ সবাই নিয়মিত চলাচল করে। একেবারে রাস্তার পাশে গর্তটি করলে যেকোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে। তাই আপনি সকলের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে রাস্তার একেবারে পাশেই ডোবাটি খনন করবেন না।

জানা যায়, গ্রামবাসীর এমন মানবিক অনুরোধের উত্তরে স্বাধীন দেবনাথ বলেন, আমি আমার রেকর্ডের জায়গায় ডোবা করবো, এতে কারো সমস্যা হবার কথা না। পরবর্তীতে গ্রামবাসীর নিষেধের তোয়াক্কা না করেই রাস্তার একেবারে নিকটবর্তী স্থানে ডোবা তৈরি করেন স্বাধীন দেবনাথ। বছর পার না হতেই স্বাধীনের তৈরি এই ডোবার পানিতে পড়েই প্রাণ গেল দুর্জয়ের। যে কারণে দুর্জয়ের মৃত্যুর জন্য অনেকে স্বাধীনের তৈরি ডোবাকেই দায়ী করছেন।

কিন্তু ঘটনাটি নিয়ে অপর একটি পক্ষ বলছে, মূল ঘটনা থেকে সরে এসে স্বাধীনকে ফাঁসানোর জন্যেই উদ্দেশ্যে প্রনদিতভাবে অভিযোগের তীর তার দিকে আনা হচ্ছে। এবিষয়ে মৃত দুর্জয়ের বাবা চন্দ্রনাথ বলেন, ছেলের মৃত্যু নিয়ে আমার যথেষ্ট সন্দেহ আছে, সাথে স্বাধীন দেবনাথের ডোবাটি এর জন্য দায়ী থাকতে পারে।

চন্দ্রনাথ বলেন, আমার ছেলে মৃত্যুর জন্য যারাই দায়ী তাদের শাস্তি চাই। আমি বিচার চাই।

এ ব্যাপারে ইউপি মেম্বার সজল দাসের সাথে যোগাযোগ করলে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে তিনি জানান, রাস্তার পাশে ডোবা তৈরি না করার জন্য গ্রামবাসীরা একই গ্রামের স্বাধীন দেবনাথকে অনুরোধ করেন, কিন্তু তিনি তাদের অনুরোধ তোয়াক্কা না করেই ডোবা তৈরি করেন। আসলে ঘটনা কি তা এখনো স্পষ্ট না। তদন্ত করলে সত্যিটা বেরিয়ে আসবে।

এবিষয়ে দিরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুল ইসলাম জানান, ছেলেটির বিভিন্ন আলামত দেখে পুলিশের সন্দেহ হয়। যেকারণে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। এবিষয়ে ইউডি’র একটি মামলা করা হয়েছে।